advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রকোপ এপ্রিলের শেষে কমে যেতে পারে বলে আশা করেছেন চীন সরকারের উপদেষ্টা ও রোগ বিশেষজ্ঞ ঝুং নানশান। বুধবার দেশটির শেনচেন টেলিভিশনে দেওয়া এক বক্তবে তিনি এ আশা প্রকাশ করেন।

chinese expert zhong nansanচীন সরকারের উপদেষ্টা ও রোগ বিশেষজ্ঞ ঝুং নানশান

নানশান বলেন, বিশ্বের প্রতিটি দেশ যদি করোনভাইরাসের বিস্তার প্রতিরোধে আগ্রাসী নীতি ও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করে তাহলে দ্রুত এ মহামারি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব। এপ্রিলের শেষের দিকে ভাইরাসটির প্রকোপ থামতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব হেলথ মেট্রিক্স অ্যান্ড ইভালুয়েশনও এক ভবিষ্যদ্বাণীতে বলেছে, করোনাভাইরাসের প্রকোপ আগামী ২০ এপ্রিলের দিকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছবে। এ সময় হাসপাতালগুলোকে আক্রান্ত রোগীদের সবচেয়ে বেশি চাপ থাকবে। এরপর এ ভাইরাসের প্রকোপ কমতে থাকবে।

এ বিষয়ে নানশান বলেন, ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সকলের ঘরে থাকা উচিত। আগামী বসন্তের সময় ভাইরাসটির দ্বিতীয় ধাপের সংক্রমণ দেখা দিতে পারে। তাই সবাইকে এখন থেকে সচেতন থাকতে হবে।

friday update

তবে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন জানান, আগামী ছয় মাসের আগে কোনোভাবেই করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কার সম্ভব নয়। তাই বিশ্বকে এই ভাইরাসটির সঙ্গে আরো অন্তত ছয় মাস যুদ্ধ করতে হবে।

গত বছর ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। এরপর ধীরে ধীরে তা বিশ্বের ২০৬টি দেশে ছড়িয়ে পড়ে। এখন পর্যন্ত এতে সংক্রমিত হয়েছেন মোট ১০ লাখ ৩০ হাজার ১৯৯ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৫৪ হাজার ১৯৮ জন। চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ২ লাখ ১৯ হাজার ৮৩৭ জন।