advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতের পর এবার চীনের জনপ্রিয় খুদে ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকটক নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজেই সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন। চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যযুদ্ধ ও কূটনৈতিক টানাপোড়েনের মধ্যেই এমন ঘোষণা দিয়েছেন ট্রাম্প।

trump us president 3ডোনাল্ড ট্রাম্প

ট্রাম্প বলেন, ‘টিকটকের ব্যাপারে কথা হলো- আমরা এটা শিগগিরই যুক্তরাষ্ট্রে নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছি।’

মাসিক হিসাবে দেখা যায়, যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে টিকটকের প্রায় ৮ কোটি সক্রিয় ব্যবহারকারী আছে।

বিবিসি বলছে, যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক বন্ধের জন্য আজ শনিবারের মধ্যেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প একটি নির্বাহী আদেশে সই করতে পারেন। বিষয়টি তিনি নিজেই সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। তবে কীভাবে নিষেধাজ্ঞাটি কার্যকর হবে, তাছাড়া এ ব্যাপারে আইনি কোনো চ্যালেঞ্জ আসবে কি না- তা এখনো স্পষ্ট নয়।

tiktok appটিকটক অ্যাপ

মার্কিন নিরাপত্তাবাহিনীর কর্মকর্তারা এর আগে উদ্বেগ জানিয়ে বলেন, চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান বাইটড্যান্সের মালিকানাধীন টিকটক অ্যাপ যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্য ‘চুরির’ জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকতে পারে। তবে বাইটড্যান্স এ ধরনের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে জানায়, তাদের অ্যাপের ডেটা নিয়ন্ত্রণ কিংবা ব্যবহার করতে পারে না চীন সরকার।

এদিকে, চীনের সঙ্গে সীমান্তে উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে গত ৩০ জুন ভারত সরকার টিকটক ও উইচ্যাটসহ ৫৯টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে। বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় অ্যাপগুলোর অন্যতম এই টিকটক ২ শ কোটিরও বেশি ডাউনলোড করা হয়েছে। তাই ভারতের পর যুক্তরাষ্ট্রেও যদি অ্যাপটি নিষিদ্ধ করে, তাহলে চরম ব্যবসায়িক ঝুঁকিতে পড়বে বাইটড্যান্স।

এর আগে একটি গুঞ্জন তৈরি হয়েছিল যে, বাইটড্যান্সের কাছ থেকে টিকটক কিনে নিতে পারে মাইক্রোসফট। কিন্তু এর মধ্যেই অ্যাপটি নিষিদ্ধের ঘোষণা দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

তবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণার বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো আনুষ্ঠানিক মন্তব্য করেনি টিকটক কর্তৃপক্ষ।

sheikh mujib 2020