advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত বিশ্ব। ভয়ংকর এই ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচতে অন্যান্য সেক্টরের পাশাপাশি বন্ধ ছিল বিশ্বের অনেক দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। কিন্তু শিক্ষাবর্ষ প্রায় শেষের দিকে। অথচ করোনার মহামারি এখনো পৃথিবীতে বিরাজমান। অনেক দেশেই এর সংক্রমণ আরো বেড়েছে। অবশ্য কিছু দেশে করোনার সংক্রমণ খানিকটা কমেছে।

irani children learning in tent in pandemicপ্লাস্টিকের তাঁবুর মধ্যে লেখাপড়া শিখছে ইরানের শিশুরা

কিন্তু বিশ্বের অদৃশ্য শত্রু করোনার সংক্রমণ অব্যাহত থাকলেও বাধ্য হয়ে অনেক দেশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিচ্ছে। তেমনি একটি দেশ হলো ইরান। ভাইরাসটির তাণ্ডবে হাতে গোনা যে কয়টি দেশ সবচেয়ে বেশি ক্ষয়ক্ষতির তালিকায় রয়েছে, ইরান তার মধ্যে একটি। তবে করোনার মহামারির মধ্যেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ায় শিশুদের জন্য এক অভিনব পদক্ষেপ নিয়েছে দেশটির প্রশাসন।

ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনার মহামারির কারণে প্রায় ৭ মাস বন্ধ রাখা হয়েছিল ইরানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠগুলো। তবে সম্প্রতি স্কুল-কলেজ খোলা হয়েছে দেশটিতে। তবে শিক্ষার্থীরা যাতে করোনাভাইরাসের কবল থেকে বাঁচতে পারে, সেজন্য নানা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

iran reopen educational institutionsপ্রায় সাত মাস পর ইরানে খুলেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

এরই অংশ হিসেবে শিশুদের ক্লাস করানোর ক্ষেত্রে একটি অভিনব পন্থা উদ্ভাবন করা হয়েছে।অর্থাৎ শ্রেণিকক্ষে প্রত্যেক শিশুর জন্য আলাদা আলাদা তাঁবুর ব্যবস্থা করা হয়েছে। শ্রেণিকক্ষের মেঝেতেই স্থাপন করা হয়েছে সেসব তাঁবু। যার চারদিক স্বচ্ছ প্লাস্টিক দিয়ে ঘেরা। যার মধ্যে বসে মাস্ক ছাড়াই পড়ালেখায় অংশ নিচ্ছে খুদে শিক্ষার্থীরা। আর দূর থেকে তাদের পড়াচ্ছেন শিক্ষকরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সম্প্রতি অভিনব এই পাঠদানের ছবি টুইটারে শেয়ার করেছেন ফারনাজ ফসিলি নামের এক সাংবাদিক। আর মুহূর্তের মধ্যে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ইরানের এই ছবি ছড়িয়ে পড়তেই মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। অনেকেই এই অভিনব উদ্ভাবনের প্রশংসা করেছেন। আবার কেউ কেউ শিশুদের মুখে মাস্ক না পরার ব্যবস্থা থাকায় তাদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

sheikh mujib 2020