advertisement
আপনি দেখছেন

চলতি বছরের শুরুর দিকেও মুনাফা ও প্রবৃদ্ধির জন্য বৈশ্বিক বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের জায়গা ছিলো দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া। আর পর্যটন খাতে ব্যাপক প্রবৃদ্ধির জন্য বিনিয়োগকারীদের সবচেয়ে পছন্দের দেশ ছিলো সিঙ্গাপুর। কিন্তু নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) তাণ্ডবে গত কয়েক মাসেই অর্থনৈতিক বিপর্যয় নেমে এসেছে এই আসিয়ান দেশগুলোতে। এক সময়ের প্রবৃদ্ধির ঘোড়া সিঙ্গাপুরে বিনিয়োগ করা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন বৈশ্বিক বিনিয়োগকারীরা।

singapore imageসিঙ্গাপুর- ফাইল ছবি

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনাভাইরাস আক্রান্ত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে ফিলিপাইন ও ইন্দোনেশিয়ায়। পাশাপাশি এ সংকট মোকাবেলায় লকডাউন জারি থাকায় সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক ধাক্কা খেয়েছে থাইল্যান্ড ও সিঙ্গাপুর। ফলে এক সময় এ দেশগুলো বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকলেও এখন বিনিয়োগে অশনি সংকেত দেখছেন তারা। বর্তমান পরিস্থিতিতে বহু ভেবেও এসব দেশে বিনিয়োগের ঝুঁকি নিতে পারছেন না সংশ্লিষ্টরা।

প্রিন্সিপাল গ্লোবাল অ্যাসেট অ্যালোকেশনের এশিয়া বিষয়ক প্রধান বিনয় চান্দগোথিয়া বলেন, এক সময় বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের প্রিয়াপাত্র ছিলো আসিয়ান। কারণ প্রতি বছর পর্যটন খাত থেকেই এ দেশগুলোর ব্যাপক প্রবৃদ্ধি হতো। কিন্তু চলমান বৈশ্বিক করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এ অঞ্চলের প্রবৃদ্ধির সবচেয়ে বড় চাকাটিই দুর্বল হয়ে গেছে। ফলে হুমকিতে রয়েছে দেশগুলোর অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি। আর এ কারণেই বিঘ্নিত হচ্ছে বিনিয়োগ প্রবাহ।

coronaকরোনাভাইরাস- প্রতীকী

তিনি আরো বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যে চলতি বছরের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত আসিয়ান দেশগুলো থেকে অন্তত ১ হাজার ৬০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। আর এ সময়েরর মধ্যে সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনের শেয়ার বাজারের পতন হয়েছে ২০ শতাংশ। এমনকি এ দেশগুলোর মুদ্রার মানও ডলারের বিপরীতে অবনতি ঘটছে। ফলে এক সময়ের দ্রুত প্রবৃদ্ধির এ দেশগুলোর অর্থনীতি বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ দেশগুলোর কাছাকাছি অবস্থান করছে।

sheikh mujib 2020