advertisement
আপনি দেখছেন

যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট ভবনে বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উগ্র সমর্থকরা গত বুধবার নজিরবিহীন হামলা চালান। সেখানেই ক্ষান্ত হননি তারা, আগামী ১৭ জানুয়ারি দেশটির সব অঙ্গরাজ্যে বড় ধরনের সশস্ত্র হামলার গোপন পরিকল্পনা চলছে।

us parliament attack trump 1ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ক্যাপিটল হিলে হামলার দৃশ্য

নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ২০ তারিখের শপথকে সামনে রেখে ট্রাম্প শিবির এ পদক্ষেপ নিচ্ছে। এমতাবস্থায় আরো ভয়াবহ হামলার আশঙ্কা করছে মার্কিন নিরাপত্তা সংস্থাগুলো। এরই মধ্যে গোয়েন্দা সংস্থাসহ অন্যান্য বাহিনীগুলোকে সতর্ক রাখা হয়েছে।

এমন প্রেক্ষাপটে গতকাল মঙ্গলবার মার্কিন তিন বাহিনীর প্রধানরা সব আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সদস্যের উদ্দেশে নজিরবিহীন একটি বিবৃতি দিয়েছেন। তাতে দেশের সংবিধান সমুন্নত রাখাসহ সব ধরনের চরমপন্থা প্রত্যাখ্যানের আহ্বান জানানো হয়েছে।

us army chiffমার্কিন সেনাবাহিনী প্রধান

বিবৃতিতে বলা হয়, সংবিধান রক্ষার শপথ করে থাকেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। চরমপন্থা মোকাবেলা করাই এর মর্মকথা।

জ্যেষ্ঠ সেনা কর্মকর্তাদের সই করা এক পৃষ্ঠার যৌথ বিবৃতিতে আরো বলা হয়, মার্কিন সেনাবাহিনী বেসামরিক রাষ্ট্রপ্রধানের আইনগত আদেশ পালন করে আসছে। দেশে-বিদেশে শত্রুর হাত থেকে জনগণ ও সম্পদ রক্ষায় কাজ করছে, সংবিধান সমুন্নত রাখতে সহায়তা করেছে।

us army chiefক্যাপিটল হিলে হামলা

বিশ্লেষকরা বলছেন, রাজনৈতিক বিষয়ে মার্কিন সামরিক বাহিনীর হস্তক্ষেপ তো দূরের কথা, জড়ানোর নজির সাধারণত দেখা যায় না। তার ওপর আবার এভাবে যৌথবাহিনীগুলোর প্রধানদের বিবৃতি অতি বিরল ঘটনা।

এর আগে মার্কিন হোমল্যান্ড সিকিউরিটির প্রধান চ্যাড উল্ফ পদত্যাগ করেন। ট্রাম্পের প্রশাসনের তৃতীয় শীর্ষ ব্যক্তি হিসেবে সরে দাঁড়ান তিনি। আগামী ২০ জানুয়ারি বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানের নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব ছিল তার ওপর।

sheikh mujib 2020