advertisement
আপনি দেখছেন

মধ্যপ্রাচ্যের ছোট্ট অথচ সবচেয়ে ধনী দেশ কাতার ২০২২ সালে ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজন করতে যাচ্ছে। এ ঘোষণা আসার পর গত ১০ বছরে (২০১১-২০২০) দেশটিতে মারা গেছে ৫ হাজার ৯২৭ জন অভিবাসী শ্রমিক। এসব শ্রমিক দেশটিতে বিশ্বকাপ কেন্দ্রিক উন্নয়নমূলক কাজে অংশ নেন।

bangladeshi workers in qatar 1কাতারে বাংলাদেশি শ্রমিক -ফাইল ছবি

এরা সবাই দক্ষিণ এশিয়ার ৫টি দেশের নাগরিক, যারা উন্নত জীবনযাপনের জন্য কাজের সন্ধানে কাতারে গিয়েছিলেন। এ তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল ও শ্রীলঙ্কা।

এই ৫ দেশের মধ্যে ১ হাজার ১৮ জন বাংলাদেশি শ্রমিক প্রাণ হারিয়েছে কাতারের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে। এমন তথ্য উঠে এসেছে প্রভাবশালী ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের একটি বিশেষ প্রতিবেদনে।

আজ মঙ্গলবার প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজনে অবকাঠামোগত উন্নয়নের বিশাল কর্মযজ্ঞে এসব বিদেশি শ্রমিক প্রাণ হারান।

bangladeshi workers in qatar 2কাতারে বাংলাদেশি শ্রমিক -ফাইল ছবি

নতুন ৭টি স্টেডিয়ামের পাশাপাশি কয়েক ডজন মেগাপ্রকল্প হাতে নেয় কাতার সরকার। এর বেশ কয়েকটির কাজ এরইমধ্যে শেষ হয়েছে, বাকিগুলোও শেষের পথে।

এসব প্রকল্পে কাজ করা ৫ দেশের অভিবাসী শ্রমিকরা প্রতি সপ্তাহে গড়ে ১২ জন করে প্রাণ হারান। দেশগুলোর সরকারি তথ্যেই এই পরিসংখ্যান পাওয়া গেছে।

এ তালিকায় শীর্ষে থাকা ভারতের ২ হাজার ৭১১ জন শ্রমিক মারা গেছেন গত এক দশকে। ১ হাজার ৬৪১ জনের মৃত্যু নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে নেপাল।

তৃতীয় বাংলাদেশের পরে শ্রীলঙ্কার ৫৫৭ জন এবং পঞ্চম স্থানে থাকা পাকিস্তানের ৮২৪ শ্রমিক প্রাণ হারানোর কথা বলা হয়। তবে অভিবাসী শ্রমিকের প্রকৃত মৃত্যুর সংখ্যা আরো অনেক বেশি হওয়ার কথা, বলছে দ্য গার্ডিয়ান।

sheikh mujib 2020