advertisement
আপনি দেখছেন

রাউল কাস্ত্রো জানিয়েছেন, কিউবার কমিউনিস্ট পার্টির নেতৃত্ব ছেড়ে দিচ্ছেন তিনি। শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) দলীয় কংগ্রেসে অপেক্ষাকৃত তরুণ নেতৃত্বের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের এ বিষয়টি নিজেই নিশ্চিত করেন। এর মধ্য দিয়ে কিউবার কমিউনিস্ট পার্টিতে তার পরিবারের ছয় দশকের নেতৃত্বের অবসান হচ্ছে বলে খবর দিয়েছে বিবিসি।

raul castro homeদলীয় কংগ্রেসে অপেক্ষাকৃত তরুণ নেতৃত্বের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের বিষয়টি নিজেই নিশ্চিত করেন রাউল

৮৯ বছর বয়সী রাউল চার দিনের দলীয় কংগ্রেসের প্রথম দিনে একটি ভাষণ দেন। ভাষণে তিনি বলেন, তার আশা নবীন নেতৃত্ব নিখাদ আবেগ ও সাম্রাজ্যবাদবিরোধী চেতনায় দলকে এগিয়ে নেবে এবং দলীয় আদর্শের প্রতি অনুগত থাকবে। ২০১৬ সালের আগের দলীয় কংগ্রেসে ‘ঐতিহাসিক প্রজন্ম’ সর্বশেষ নেতৃত্বে এসেছিল। এখন থেকে নবীন নেতৃত্ব দলকে উপযুক্ত দিকনির্দেশনা দেবে।

১৯৫৯ সালে বিপ্লবের মাধ্যমে রাউলের বড় ভাই ফিদেল কাস্ত্রো কিউবার আনুষ্ঠানিক নেতৃত্ব গ্রহণ করেন, যা রাউলের নেতৃত্ব ছাড়ার মাধ্যমে শেষ হচ্ছে। ৬০ বছর বয়সী মিগুয়েল দিয়াজ-ক্যানেলের কাছে ২০১৮ সালে প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা হস্তান্তর করেছিলেন রাউল। জাতীয় সরকারের নেতৃত্বে আসার আগে মিগুয়েল দুটি প্রদেশে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

হাভানায় কংগ্রেসে দলীয় প্রতিনিধিদের উদ্দেশে রাউল বলেন, ‘সহযোদ্ধাদের শক্তিমত্তা, স্বভাবজাত অনুকরণ ও প্রজ্ঞার ওপর আমার বিশ্বাস রয়েছে। দেশবাসীও তাদের নেতৃত্বের প্রতি আস্থাশীল।’

castro3২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সাথে ঐতিহাসিক আলোচনায় বসেন রাউল

রাউল কাস্ত্রোর বিদায়ে যে নবীন নেতারা কমিউনিস্ট পার্টির নেতৃত্বে আসছেন, তারা কিউবার বিপ্লবের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত ছিলেন না। বর্তমানে কিউবা ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলা করছে। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর এই প্রথম এতটা সংকটে পড়েছে দেশটি। ধারণা করা হচ্ছে, তরুণ নেতৃত্বের মাধ্যমে দেশটি এ সংকট থেকে উত্তরণের উপায় খুঁজে পাবে।

ফিদেল কাস্ত্রোর পর ২০১১ সাল থেকে দলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন রাউল। ১৯৫৯ সালে ফিদেল কাস্ত্রো যখন বিপ্লবের নেতৃত্ব দেন, রাউল ছিলেন তার অন্যতম কমান্ডার। ২০০৬ সালে অসুস্থ হওয়ার আগ পর্যন্ত ফিদেল দেশটির নেতৃত্বে ছিলেন এবং ২০০৮ সালে তিনি প্রেসিডেন্টের পদ ছেড়ে দেন। এরপর ২০১৬ সালে মারা যান ফিদেল কাস্ত্রো।

castro2১৯৫৯ সালে ফিদেল কাস্ত্রো যখন বিপ্লবের নেতৃত্ব দেন, রাউল ছিলেন তার অন্যতম কমান্ডার

রাউল কাস্ত্রোর নেতৃত্বে কিউবার একক ক্ষমতা পায় কমিউনিস্ট পার্টি। তার সময়েই ২০১৪ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে চিরবৈরি যুক্তরাষ্ট্রের সাথে কিউবার সম্পর্কের উন্নয়ন হয়। এর মধ্যে ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সাথে ঐতিহাসিক আলোচনায় বসেন রাউল। তবে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হলে এ সম্পর্কের ফের অবনতি ও নতুন করে উত্তেজনা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে ট্রাম্প প্রশাসন কিউবার ওপর বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা দেয়।