advertisement
আপনি দেখছেন

পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রশাসনের অবস্থানকে ‘শত্রুনীতি’ আখ্যায়িত করেছে উত্তর কোরিয়া। একই সাথে বাইডেন প্রশাসনের প্রতি হুঁশিয়ারি দিয়ে পিয়ংইয়ং বলেছে, অচিরেই চলমান সংকট যুক্তরাষ্ট্রের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবে।

kim biden h

রোববার (২ মে) সিরিজ বিবৃতিতে উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অভিযোগ করেছে, যুক্তরাষ্ট্র ‘অসহনীয় উস্কানি’ দিচ্ছে। এর ফলে তিনটি দেশের (যুক্তরাষ্ট্র ও দুই কোরিয়া) মধ্যককার সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটতে পারে।

সিএনএন বলছে, গত বৃহস্পতিবার কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে দেওয়া প্রথম ভাষণে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন পিয়ংইয়ংয়ের পরমাণু কর্মসূচিকে ‘যুক্তরাষ্ট্র ও বিশ্বের নিরাপত্তার’ জন্য গুরুতর হুমকি আখ্যায়িত করেন। এ বক্তব্যের জবাবে দ্বিতীয় বিবৃতিতে উত্তর কোরিয়া বিরক্তি প্রকাশ করে বলেছে, যখন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় উত্তর কোরিয়াকে বিশ্বের ‘আগ্রাসী ও কর্তৃত্ববাদী’ রাষ্ট্র হিসেবে উল্লেখ করে, তা আসলে ‘রাজনৈতিক প্রতারণার’ শামিল।

kim biden 2

তৃতীয় আরেক বিবৃতিতে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের বোন কিম ইয়ো জং দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতি হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, বেলুনে উত্তর কোরিয়ার ভূখণ্ডে লিফলেট পাঠানোর জন্য দক্ষিণ কোরিয়াকে ‘কঠিন পরিণতি’ভোগ করতে হবে।

গত শুক্রবার বাইডেনের প্রেসসচিব জানান, উত্তর কোরিয়ার সাথে চলমান আলোচনা তারা সম্পূর্ণভাবে পুনর্বিবেচনা করবে। শিগগিরই মিত্র দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের সাথে বসে বিষয়টি পর্যালোচনা করা হবে। ওয়াশিংটন বাস্তবসম্মত পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে, যেটি ট্রাম্প প্রশসানের ‘দর কষাকষি’ কিংবা ওবামা প্রশাসনের ‘ধৈর্য ধরার’ কৌশল থেকে ভিন্ন। বাইডেন তার মিত্র দক্ষিণ কোরিয়ার নেতা মুন জে ইনের সাথে এ মাসের শেষদিকে ওয়াশিংটনে সাক্ষাতের কথা জানিয়েছেন।

kim biden 3

উত্তর কোরিয়ার সিরিজ বিবৃতিতে বারবার বাইডেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও দক্ষিণ কোরিয়া কীভাবে পিয়ংইয়ংকে ‘অপমান’ করেছে, তা উল্লেখ করা হয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় উত্তর কোরিয়ার মানবাধিকার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। জবাবে উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘মানবাধিকার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কথা বলা মানাই না। কারণ, দেশটিতে নিরপরাধ মানুষ প্রাণ হারাচ্ছে। প্রত্যেক দিনই অসমতা ও বর্ণবাদ বাড়ছে। যে দেশে করোনাভাইরাসে ৫ লাখ ৮০ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে, তারা কীভাবে মানবাধিকারের বুলি দেয়?’

যুক্তরাষ্ট্রে উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক কোন জং গান বলেছেন, পিয়ংইয়ং নিয়ে বাইডেনের মন্তব্য ‘বড় ধরনের ভুল’। কারণ, এতে শীতলযুদ্ধকে ফের উস্কে দেওয়া হয়েছে।