advertisement
আপনি দেখছেন

শাওয়াল মাসের চাঁদ না দেখেই পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে পাকিস্তানে। দেশটির জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি গতকাল বুধবার এ ঘোষণা দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

moon sighting controversy in pakistan

বিষয়টি সামনে এনে কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মুফতি মুনিবুর রহমান বলেন, পাকিস্তানের মুসলমানদের এক দিনের রোজা কাজা করতে হবে। সেইসঙ্গে কাজা হবে এক দিনের ই’তিকাফও।

চাঁদ দেখা কমিটি ‘মনগড়া সিদ্ধান্ত’ নিয়েছে বলে আজ বৃহস্পতিবার ঈদ জামাতের আগে বয়ানে উল্লেখ করেন তিনি। মুফতি মুনিবুর বলেন, সরকারের করা পুতুল কমিটির সিদ্ধান্ত শোনার পর সারারাত অঝোরে কেঁদেছি।

এক্সপ্রেস নিউজ জানায়, বুধবার রাত ১১টা ৩২ মিনিটে ইসলামাবাদে সংবাদ সম্মেলন করে চাঁদ দেখার ঘোষণা দেয়া হয়। রুয়াত-ই-হিলাল কমিটির চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল খবির আজাদ এ ঘোষণা দেন।

জানানো হয়, বেলুচিস্তানের চামান, কিল্লা সাইফুল্লাহ ও পাসনি, খাইবার পাখতুনখাওয়ার পেশোয়ার ও সিন্ধুর মিরপুরখাসে চাঁদ দেখা গেছে। এর ফলে বৃহস্পতিবার ঈদ উদযাপিত হবে।

eid moon

এর আগে সন্ধ্যার পর চাঁদ দেখতে না পাওয়ার কথা জানায় সাক্কুর, লাহোর, করাচি ও কোয়েটার আঞ্চলিক কমিটি। দেশটির আবহাওয়া অফিসও জানিয়েছিল, বিদ্যমান পরিস্থিতিতে বুধবার আকাশে চাঁদ দেখতে পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ।

সার্বিক বিবেচনায় শুক্রবারে ঈদ হওয়ার কথা জানিয়ে প্রস্তুতি নেয়ার কথা বলেছিলেন পাকিস্তানি আলেমরা। এমন অবস্থায় কমিটির সিদ্ধান্তে তারা অসন্তোষ প্রকাশ করেন।

এমন প্রেক্ষাপটে মুফতি মুনিবুর রহমান বলছেন, পেশোয়ারের কাসেম খান মসজিদের মুফতি শিহাবুদ্দীন চাঁদ দেখার কথা জানানোর পরই ঈদের ঘোষণা দেয় কমিটি।