advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনার আক্রমণে পৃথিবী যখন একদফা নাজেহাল হয়ে টিকা আবিষ্কারের মধ্য দিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে, তখনই সৃষ্টি হয়েছে এর নতুন ধরন ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের। এর সংক্রমিত হওয়ার ক্ষমতা অন্য ধরনগুলোর চেয়ে কয়েকগুণ বেশি। যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউসি ধরনটিকে ‘জঘন্য’ বলে অভিহিত করেছেন।

dr anthony fauciঅ্যান্থনি ফাউসি

এবিসি নিউজের একটি অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে গতকাল রোববার (১১ জুলাই) এমন মন্তব্য করেন অ্যান্থনি ফাউসি। তিনি বলেন, করোনার ডেল্টা ধরন মানুষ থেকে মানুষে সংক্রমিত হয় অতি দ্রুত। তবে আশার কথা হলো- যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে যেসব ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হচ্ছে, সেগুলো এই ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে খুবই কার্যকর। তাই সবাইকে দ্রুত টিকা নিতে হবে।

ইতোমধ্যে বিদ্যুৎ গতিতে করোনার এই ধরন ছড়িয়ে পড়েছে ১০০টিরও বেশি দেশে। পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে, পুরো পৃথিবী গ্রাস করে তবেই থামবে ডেল্টা ধরন। রাশিয়ায় নতুন শনাক্তের ৮৯.৩ শতাংশ এই ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত। প্রায় একই পরিস্থিতি যুক্তরাজ্যেও। বাংলাদেশে এখন যারা আক্রান্ত হচ্ছেন, তাদের ৮০ ভাগই এই ভ্যারিয়েন্টের শিকার।

delta variant who

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টকে আখ্যা দিয়েছে ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’ হিসেবে। ভারতে তাণ্ডব চালানোর পর এটি এখন ছড়িয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র, এশিয়া ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ-অঞ্চলে। টিকা আবিষ্কার এবং তার পরবর্তী সময়ে এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে যতটুকু সাফল্য অর্জন করেছিল বিশ্ব, সেটাও এখন ম্লান হতে যাচ্ছে ডেল্টা ধরনের দাপটে।