advertisement
আপনি দেখছেন

তালেবান ক্ষমতায় এলে তাদের সঙ্গে কাজ করবে যুক্তরাজ্য। দৈনিক টেলিগ্রাফকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে একথা জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেন ওয়ালেস। তিনি বলেন, কোনো একটি দেশের সরকার যাই হোক না কেন, আন্তর্জাতিক কিছু নিয়ম মেনে চললে যুক্তরাজ্য তাদের সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত।

uk defense secretary ben wallaceবেন ওয়ালেস

বেন ওয়ালেস বলেন, তবে আফগানিস্তানে তালেবান ক্ষমতায় এলে তাদের ব্যাপারে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক কেমন হবে তা যাচাই করা হবে। মানবাধিকারের বিরুদ্ধে তারা যদি অবস্থান নেয়, তাহলে সে ব্যাপারে অবশ্যই যুক্তরাজ্য চিন্তাভাবনা করেই কাজ করবে।

১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিল তালেবান। তারপর তাদেরকে উৎখাত করে ক্ষমতা নেয় দখলদার বাহিনী। ২০ বছর ধরে দখলদারদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে লিপ্ত রয়েছে সশস্ত্র গোষ্ঠীটি। তারা পশ্চিমানির্ভর সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে আসছে।

afgan taliban control district

যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে বিদেশি বাহিনী আগামী ১১ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তান ছেড়ে দেওয়ার কথা রয়েছে। এই ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সুন্নি মুসলিমের সশস্ত্র গ্রুপ তালেবান তাদের যুদ্ধ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। তারা প্রতিদিন বিভিন্ন জেলা-অঞ্চল দখল করছে।

তবে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষামন্ত্রী স্বীকার করেছেন, তালেবানের সঙ্গে কাজ করলে বিশ্বব্যাপী তা বিতর্কিত হতে পারে। তালেবান আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির জন্য মুখিয়ে আছে। অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার অবসান ঘটানো এবং জাতিগঠনে কাজ করতে হলে তাদের আন্তর্জাতিক সমর্থন দরকার। তারা যদি আগের মতো মানবাধিকার লঙ্ঘন, হত্যাযজ্ঞ চালাতেই থাকে তাহলে তাদের সঙ্গে কাজ করা যায় না।

afgan taliban

ওয়ালেস বলেন, অবশ্যই তাদের শান্তির পথে পদক্ষেপ নিতে হবে, তা না হলে পুরো বিশ্বের সঙ্গে তাদের বিচ্ছিন্নই থাকতে হবে। বেন ওয়ালেস তালেবান ও আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন, তারা যেন সমঝোতার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ দেশ তৈরিতে একত্রে কাজ করেন। বছরের পর বছর চলতে থাকা যুদ্ধ যেন এখনই থামিয়ে দেন।

এই সপ্তাহে আফগার কর্মকর্তাদের দোহায় তালেবানের সঙ্গে বৈঠক করার কথা রয়েছে। যদিও সমঝোতার ব্যাপারে তালেবান একেবারেই নারাজ। গত সপ্তাহে তালেবান নেতারা ঘোষণা দেয়, তারা আফগানিস্তানের ৮৫ ভাগ অঞ্চল ইতোমধ্যে দখলে নিয়েছে।