advertisement
আপনি দেখছেন

যুক্তরাষ্ট্রের ওরেগনের ফ্রেমন্ট-ওয়াইনেমা জাতীয় উদ্যানে দাবানল দেখা দিয়েছে। আগুনে উদ্যানের ৪ লাখ একর জমি কালো হয়ে গেছে। পোর্টল্যান্ডের ২৫০ মাইল দক্ষিণের এ অঞ্চলটিতে ধ্বংস হয়ে গেছে বহু গাছ। এটা ওরেগনের তৃতীয় বৃহত্তম দাবানল, এর আগে ১৯০০ সালের দিকে একবার এমন দাবানলের ঘটনা ঘটেছিল। চলমান এই দাবানল যুক্তরাষ্ট্রের ১৩টি পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্যের ৮০টি বড় দাবানলের একটি। সপ্তাহ দুয়েক ধরে চলছে এই দাবানল।

oregon fireওরেগনে পুড়ে গেছে ৪ লাখ একর জমি

ওরেগনে দাবানলে ৬৭টি বাড়ি ধ্বংস হয়েছে ও জীবনের হুমকির মুখে আছে ৩ হাজার ৪০০ মানুষ। সরকারি এক আদেশে ২ হাজার ১০০ মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। মূলত বজ্রপাত থেকে এই আগুনের সূত্রপাত। গরম আবহাওয়ায় আগুন সহজেই ছড়িয়ে পড়েছে। বিজ্ঞানীদের দাবি, প্রতিবছর দাবানলের ঘটনায় ওরেগনের এ অঞ্চলে খরা দেখা দিয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আবহাওয়ায় বড় রকমের পরিবর্তন এসেছে। দাবানল ডেকে এনেছে দীর্ঘমেয়াদি খরা।

যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্য ওরেগন। বছরের পর বছর দাবানলে সৃষ্টি হওয়া খরায় প্রচণ্ড রোদের তাপ থাকে সেখানে। পুড়ে গেছে ক্রিসমাস ট্রির বাগান। চলমান দাবানলের কারণে তীব্র গরম আবহাওয়ায় গাছগুলো আস্তে আস্তে মারা যাচ্ছে। প্রাণীকুলও অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। ১১৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রায় জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। এ সময় ক্রিসমাস ট্রিগুলো বেড়ে ওঠার সময়। কিন্তু রোদের তাপে গাছগুলো স্বাভাবিকতা হারাচ্ছে।

হেমফিল ট্রি ফার্মের মালিক জেকব হেমফিল বলেন, তীব্র গরম আবহাওয়ায় আমার একলাখ ডলার মূল্যমানের ক্রিসমাস গাছ মরে গেছে। তাবদাহে ১১৬.১ ডিগ্রি ফারেনহাইটে ওঠে তাপমাত্রা। আমি রাতে বাগানে গিয়ে দেখি গাছগুলোর কচি ডগা মূলত তাপে নরম হয়ে পচন ধরেছে।

নিশ্চিত করেই এই ক্ষতি এ বছর তার পরিবারের ওপর দিয়ে যাবে। পরের বছর আবার ভালো করার আশা দেখছেন তিনি। ক্ষেতে গাছগুলো আবার নতুন করে রোপণ করবেন।

উইলমেট ভ্যালির কয়েকজন কৃষক রয়টার্সকে জানান, একে তো দাবানলের এলাকা তারওপর গরমের সময়। হিট ওয়েভ চলছে। অঞ্চলটিতে তীব্র খরা দেখা দিয়েছে। এতে গাছ-গাছালি ফসলাদি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।