advertisement
আপনি দেখছেন

লিবিয়া থেকে বিদেশি বাহিনী ও ভাড়াটে সৈন্যদের অপসারণের আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেছেন মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ এল-সিসি। এ সময় তিনি লিবিয়ার নিরাপত্তা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় জাতীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর ঐক্য নিশ্চিত করার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন।

el sisiমিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ এল-সিসি

লিবিয়ার ন্যাশনাল আর্মির কমান্ডার খলিফা হাফতার এবং প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার আকিলা সালেহর সাথে আলোচনাকালে সিসি এসব কথা বলেন। সিসি এ সময় লিবিয়ায় নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা পুনরুদ্ধারের উপায় এবং তার সার্বভৌমত্ব ও ঐক্য বজায় রাখার বিষয়ে আলোচনা করেন। মিশরের গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান আব্বাস কামেলের উপস্থিতিতে কায়রোতে লিবিয় কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাৎ করেন সিসি।

মিশরের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র বাসাম রেডি বলেছেন, লিবিয়ার ও তার জনগণের সাথে মিশরের বিশেষ সম্পর্কের প্রেক্ষিতে সেখানকার সাম্প্রতিক উন্নয়ন নিয়ে বৈঠকে আলোচনা করা হয়েছে। সেখানে মিশরের ওই সুপ্রতিষ্ঠিত নীতি নিয়েও আলোচনা হয়, যাতে রাজনৈতিক ও নিরাপত্তার ক্ষেত্রে লিবিয়ার স্থিতিশীলতাকে মিশরেরই স্থিতিশীলতা বলে মনে করা হয়। বৈঠকে মিশর-লিবিয়ার সহযোগিতা ও সমন্বয়ের সম্ভাবনা সম্পর্কেও পর্যালোচনা করা হয়েছে।

lybian armyটহল দিচ্ছে লিবিয়ার সেনা সদস্যরা

বৈঠকে মিশরের প্রেসিডেন্ট বলেন, কায়রো লিবিয়ায় বাহ্যিক হস্তক্ষেপ রোধে তার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে। এর ফলে লিবিয়ার জনগণের ব্যয়ে তার নিজস্ব এজেন্ডা বাস্তবায়ন করা, সেইসাথে সমস্ত বিদেশি বাহিনী এবং লিবিয়ার ভূখণ্ড থেকে ভাড়াটেদের বহিষ্কার করা সম্ভব হবে।

বৈঠকে হাফতার ও সালেহ নিশ্চিত করেন, লিবিয়ার ক্রান্তিকাল পরিচালনার বিষয়ে মিশরের দৃষ্টিভঙ্গির সাথে তাদের অবস্থান অনেকটাই সামঞ্জস্যপূর্ণ। তারা বলেন, লিবিয়া থেকে বিদেশি বাহিনী অপসারণ স্থানীয় নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠানগুলোকে তাদের দায়িত্ব ও কাজ সম্পাদন করতে সক্ষম করে তুলবে। যা দেশের সব অংশে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা পুনরুদ্ধারে বড় আকারে অবদান রাখবে।

সূত্র: আরব নিউজ