advertisement
আপনি দেখছেন

করোনার মধ্যেই চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে জার্মানিতে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় দুই মাস পর গতকাল বুধবার নতুন সরকার গঠনের ঘোষণা দিয়েছে বিজয়ী মধ্যবামপন্থি জোট। নতুন সরকার বিদায়ী চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলের মন্ত্রিসভার স্থলাভিষিক্ত হবে। এর মধ্য দিয়ে ১৬ বছরের মার্কেল যুগের অবসান হলো জার্মানিতে।

olaf scholzওলাফ শলৎজ

সেই সঙ্গে ওলাফ শলৎজের নেতৃত্বে প্রথমবারের মতো ক্ষমতায় বসছে সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটরা (এসপিডি)। করোনা মহামারি ও জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় বেশি গুরুত্ব দেওয়া হবে বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে নতুন সরকার। খবর রয়টার্স ও এএফপির।

নির্বাচনে মার্কেলের দল সিডিইউ-সিএসইউ জোটকে হারিয়ে ঐতিহাসিক জয় পায় এসপিডি। তবে জয় পেলেও সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনে ব্যর্থ হয় দলটি। ফলে সমমনা দলগুলোর সঙ্গে জোট গঠনের লক্ষ্যে শুরু হয় আলোচনা। ওলাফ শলৎজ সে সময় বলেছিলেন, বডদিনের আগেই জোট সরকার গঠন করা হবে। কথামতো বড়দিনের আগেই সরকার গঠন করলেন ওলাফ।

angela markelমার্কেল যুগের অবসান হলো জার্মানিতে

প্রায় দুই মাসের ব্যাপক আলোচনার পর আগামী চার বছরের জন্য জার্মানির দায়িত্ব নেওয়ার জন্য গ্রিন পার্টি (সবুজ রঙের প্রতীক) ও লিবারেল ফ্রি ডেমোক্র্যাটস-এফডিপি (হলুদ রঙের প্রতীক) সঙ্গে জোট করতে সক্ষম হয়েছে এসপিডি (লাল রঙের প্রতীক)। তিন রঙের তিন দলকে নিয়ে গঠিত নতুন এই জোটকে বলা হচ্ছে ‘ট্রাফিক লাইট কোয়ালিশন’।

জোট সরকারের চ্যান্সেলর হিসাবে দায়িত্ব নেবেন ৬৩ বছর বয়সি ওলাফ শলৎজ। গতকাল বুধবার সরকার গঠনের ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে সরকারের কর্মপরিকল্পনা তথা রোডম্যাপও ঘোষণা করেছেন এসপিডি নেতা ওলাফ শলৎজ। নতুন সরকার করোনা ও জলবায়ু সুরক্ষার ওপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেবে বলে জানান তিনি।

এক বক্তব্যে শলৎজ বলেন, মহামারি মোকাবেলায় যারা ফ্রন্টলাইনে কাজ করছে সেই স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য প্রণোদনা হিসাবে ১০০ কোটি ইউরো ব্যয় করবে তার সরকার। জলবায়ু পরিবর্তন রুখতে ২০৩০ সালের মধ্যে ধাপে ধাপে কয়লার ব্যবহার বাতিলের ঘোষণা দেন তিনি। ইউরোপকে আরও শক্তিশালী ও সার্বভৌম করার প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেছেন শলৎজ।