advertisement
আপনি পড়ছেন

ব্রাজিলের পোন্তা গ্রোসার ইমাম আলী মসজিদে চরমপন্থীরা হামলা ও ভাংচুর করেছে। মসজিদ প্রশাসকরা এ তথ্য জানিয়েছেন। খবরে বলা হচ্ছে, সন্ত্রাসীরা মসজিদের দেওয়ালে ক্ষতিসাধন করার সময় কোরআনের একটি কপি পুড়িয়ে দিয়েছে। আল জাজিরার বরাত দিয়ে খবরটি দিয়েছে আহলে বাইত নিউজ এজেন্সি।

mosque imam aliইমাম আলী মসজিদ

ইনস্টাগ্রামে প্রকাশিত শনিবারের (২৭ নভেম্বর) এক বিবৃতিতে বলা হয়, শিয়া মসজিদটির ব্যবস্থাপনা কমিটি জানিয়েছে, শুক্রবার সকালে এই হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। জঘন্য অপরাধটি শুধু ইসলামের বিরুদ্ধে ছিল না বরং এটি অন্য সব ধর্মের জন্যও হুমকি। কারণ হামলাটি আল্লাহর বাণী ও ঘরকে অপবিত্র করেছে।

ব্রাজিলিয়ান ওয়েবসাইট আরেথে পোস্টের করা তথ্য অনুসারে, অপরাধীরা পাশের দরজা থেকে মসজিদে প্রবেশ করেছিল যা ভাঙা অবস্থায় পাওয়া যায়। একটি ঝুলন্ত ফ্রেমে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়, যাতে ইসলামিক বাক্যাংশ লেখা ছিল। তবে মসজিদ থেকে কিছু চুরি হয়নি।

brazil muslimব্রাজিলে মোট জনসংখ্যার ১ শতাংশের প্রতিনিধিত্ব করেন মুসলমানরা

ইসলাম ব্রাজিলের সংখ্যালঘু ধর্ম। প্রথমে আফ্রিকান দাসদের দ্বারা এবং তারপর লেবানিজ এবং সিরিয়ান অভিবাসীদের দ্বারা এখানে ইসলাম প্রবেশ করে। মুসলমানরা স্বাধীনভাবে ব্রাজিলে ধর্ম পালন করতে পারেন না বলে অভিযোগ রয়েছে। দেশটিতে ইসলাম মূল ধর্ম তালিকায় নেই, অন্যান্য ধর্মের কাতারে গোষ্ঠীভুক্ত। দেশটির জনসংখ্যার ১ শতাংশের প্রতিনিধিত্ব করেন মুসলমানরা।

সবশেষ তথ্যমতে, ব্রাজিলে মুসলিমদের সংখ্যা সাত লাখ ৬৭ হাজার ৭৮৩ জন। তবে সরকারি হিসেবে এই সংখ্যা গোপন করা হয়। ২০০০ সালের সরকারি আদমশুমারি অনুসারে, ব্রাজিলে ২৭ হাজার ২৩৯ জন মুসলমানের কথা উল্লেখ ছিল। অথচ তখন সংখ্যাটি আরও বেশি ছিল, যা সরকারি হিসেবে উঠে আসেনি।