advertisement
আপনি পড়ছেন

দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনার সবশেষ ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনকে এ যাবতকালের সবচেয়ে বিপদজনক ও অতি সংক্রামক হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। দ্রুত ছড়াতে সক্ষম ভ্যারিয়েন্টটি এখন পর্যন্ত ১৭ দেশে শনাক্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। এ নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ডাব্লিউএউচওর কড়া হুঁশিয়ারির মধ্যেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে দেশে দেশে।

omicron covid 19 virusওমিক্রন নিয়ে বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক, ফাইল ছবি

লাইভ মিন্টের তথ্যমতে, ‍ওমিক্রণে আক্রান্তদের অধিকাংশই দক্ষিণ আফ্রিকাসহ অন্য দেশ ভ্রমণ করেছেন সম্প্রতি। একের পর এক দেশে ভ্যারিয়েন্টটি শনাক্ত হলেও এর প্রভাব ও ভয়াবহতা নিয়ে নিশ্চিত হতে পারেননি জনস্বাস্থ্য ও মহামারি বিশেষজ্ঞরা। তবে এটি করোনা প্রতিরোধক টিকার সুরক্ষা ভেদ করতে সক্ষম বলে মনে করছেন তারা।

যেসব দেশে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে, সেগুলো হলো- দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, ডেনমার্ক, বেলজিয়াম, ইসরায়েল, ইতালি, চেক প্রজাতন্ত্র, হংকং, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, সুইজারল্যান্ড, ফ্রান্স ও পর্তুগাল। গত বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম B.1.1.529 নামের ভাইরাসটি শনাক্ত হয়।

omicron around worldবিশ্বজুড়ে ওমিক্রন

এসব দেশের মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকার রাজধানী জোহানেসবার্গ প্রদেশে পিসিআর পরীক্ষায় চলতি সপ্তাহের মাঝামাঝি ১ হাজার ১০০ রোগী শনাক্ত করা হয়। এর মধ্যে ৯০ শতাংশের শরীরে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। দেশটির সীমান্তবর্তী বতসোয়ানায় কমপক্ষে ১৯ জন এই ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত বলে জানানো হয়েছে।

এএফপি জানায়, যুক্তরাজ্যে শনাক্ত হওয়া ৩ জন দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। জার্মানিতে শনাক্ত হওয়া দুজনও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে মিউনিখ বিমানবন্দরে গিয়েছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে নেদারল্যান্ডসে যাওয়া কয়েক শ যাত্রীর মধ্যে ৬১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে, যার মধ্যে ১৩ জনের ওমিক্রন। ফ্রান্সে ৮ জন ও পর্তুগালে ১৩ জনের দেহে এটি শনাক্ত হয়েছে।

ব্লুমবার্গ জানায়, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে যাওয়া দুজন ওমিক্রন আক্রন্ত হয়েছে ডেনমার্কে। হংকং, অস্ট্রেলিয়া ও কানাডায় দুইজেন করে এবং ইউরোপের প্রথম দেশ হিসেবে বেলজিয়াম, ইসরায়েল, ইতালি, চেক প্রজাতন্ত্র ও সুইজারল্যান্ডে একজন করে ওমিক্রনে আক্রান্ত বলে জানা গেছে।

এর বাইরে নামিবিয়া, লেসোথো, এসওয়াতিনি ও জিম্বাবুয়েও ‍ওমিক্রনের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে খবর দিয়েছে কিছু গণমাধ্যম। তবে বিষয়টি যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে নিশ্চিত না হওয়ায় সবশেষ এই তালিকায় যুক্ত করা হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, এটির তীব্রতা যথাযথভাবে বোঝার জন্য আরো কয়েক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে। ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’ ঘােষিত ওমিক্রনের বিস্তার রােধে এর মধ্যেই বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা এবং বিমান চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপের হিড়িক পড়েছে।