advertisement
আপনি পড়ছেন

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ নাগাদ ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদে পরিণত হতে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আগামীকাল শনিবার, ৪ ডিসেম্বর, সকালে এটি ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের উত্তর এবং উড়িষ্যার উপকূলে পৌঁছাতে পারে বলে দেশটির আবহাওয়া বিভাগের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

cyclone jawad bay of bengalভারতীয় উপকূলে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ

ভারতীয় আবহাওয়া দপ্তর বা আইএমডি এক পূর্বাভাসে জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, দিবাগত গভীর রাতে নিম্নচাপটি তৈরি হয় বিশাখাপত্তম থেকে ৭৭০ কিলোমিটার দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমে। এটি উত্তর-পশ্চিম দিকে আরো অগ্রসর হচ্ছে।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজ শুক্রবার, ৩ ডিসেম্বর, সকালে এটি বঙ্গোপসাগর সংলগ্ন দক্ষিণ-পশ্চিমে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়। পরবর্তী ১২ ঘণ্টায় এটি আরো ঘণীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে বলে জানিয়েছে আইএমডি। বলা হচ্ছে, ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ শনিবার যখন উপকূলে পৌঁছাবে তখন তীব্র ঝড়ের গতিবেগ নিয়ে আসতে পারে।

india national disaster response forceভারতের জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বাহিনীর সদস্য

এর প্রভাবে ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ, উড়িষ্যা এবং গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ এলাকায় ভারি থেকে তীব্র ভারি বৃষ্টিপাত হতে পারে। এর ফলে এসব এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার পাশাপাশি ফসলের ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে, বলছে আইএমডির পূর্বাভাস।

উড়িষ্যা সরকার ইতোমধ্যে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় নির্দেশনা জারি করেছে। এ ছাড়া ভারতের জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বাহিনী এবং ফায়ার সার্ভিসসহ অন্যান্য বাহিনীর ২৬৬টি টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে। পূর্ব সতর্কতা হিসেবে আগামী ৩ ডিসেম্বর থেকে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত উড়িষ্যা উপকূলে মাছ ধরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঘূর্ণিঝড় সংক্রান্ত পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করতে গতকাল বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করেছেন। বৈঠকে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট আসন্ন ঘূর্ণিঝড়ের অবস্থা ও তা মোকাবেলা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।