advertisement
আপনি পড়ছেন

রিয়াদের কূটনৈতিক সূত্র শনিবার জানিয়েছে, সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান পারস্য উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদের (পিজিসিসি) সদস্যভুক্ত দেশগুলোর আনুষ্ঠানিক সফর শুরু করবেন। বিরোধ মীমাংসার লক্ষ্যে সোমবার, ৬ ডিসেম্বর, থেকে তার এই সফর শুরু হচ্ছে। 

bin salman saudi arabiaসৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর পারস্য উপসাগরীয় দেশগুলোতে সফরের পরই সৌদি ক্রাউন প্রিন্সের এই সফরটি অত্যন্ত গুরুত্ব বহন করছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

খবরে বলা হচ্ছে, বিন সালমানের এই সফরের লক্ষ্য দেশগুলোর মধ্যে ‘যেকোনো ভূ-রাজনৈতিক পার্থক্য দূর করা’। পিজিসিসির সদস্যভুক্ত ছয় দেশের মধ্যে সকল ক্ষেত্রে সহযোগিতা ও সমন্বয় বাড়ানোর লক্ষ্যে তিনি সফর করছেন। মিডল ইস্ট ডটইন টোয়েন্টি ফোরের বরাত দিয়ে আবনা নিউজ এ খবর দিয়েছে।

iran saudi 1ইরান ও সৌদি আরবের মধ্যে দীর্ঘ বছর ধরে বৈরিতা চলছে

জার্মান বার্তা সংস্থা ডিপিএ-এর কাছে আসা এক বিবৃতিতে বলা হচ্ছে, সৌদি ক্রাউন প্রিন্সের পারস্য উপসাগরীয় নেতাদের সাথে তার সাক্ষাতের আলোচ্যসূচির অন্যতম প্রধান বিষয় হল ইরানের পারমাণবিক কার্যক্রম ও ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তির বিষয়ে নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া করা।

একটি সূত্র ডিপিএ-কে জানিয়েছে , ইরানসহ পিজিসিসি দেশগুলোর সঙ্গে যেকোনো ভূ-রাজনৈতিক পার্থক্য দূর করতে চায় সৌদি আরব। ছয় দেশের মধ্যে নিরাপত্তা, প্রতিরক্ষা, অর্থনীতি, বাণিজ্য, বিনিয়োগ, জ্বালানি এবং যোগাযোগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতার গতি বাড়ানো এ সফরের মূল রক্ষ্য। সফরে পারস্য উপসাগরীয় নেতাদের সাথে সৌদি ক্রাউন প্রিন্স নানা বিষয়ে আলোচনা করবেন।

এর আগে গত জানুয়ারিতে পশ্চিম সৌদি শহর আল-উলাতে অনুষ্ঠিত পারস্য উপসাগরীয় শীর্ষ সম্মেলনের পর যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান এই প্রথম উপসাগরীয় অঞ্চলে পাঁচ দিনের সফর করবেন। দেশগুলো হল- ওমান, বাহরাইন, কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত ও ইরান।