advertisement
আপনি পড়ছেন

করোনার নয়া স্ট্রেন ওমিক্রনের দাপটে বিশ্বজুড়ে আবারো হু হু করে বাড়তে সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিতে চীনসহ অনেক দেশ আবারো কড়া নিষেধাজ্ঞার পথে হাঁটতে শুরু করেছে। টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়াও শুরু হয়েছে। কিন্তু এভাবে কি ওমিক্রনকে রোখা সম্ভব? বা ওমিক্রন থেকে নিচেকে বাচানো সম্ভব? ভারতের শীর্ষস্থানীয় এক মহামাররি বিশেষজ্ঞ এতে তেমন আশা দেখতে পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন।

jayaprakash muliyilড. জয়াপ্রকাশ

ভারতের আইসিএমআরের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ এপিডিমোলজির চেয়ারপার্সন ও মহামারি বিশেষজ্ঞ ড. জয়াপ্রকাশ মুলিয়ালি ওমিক্রন সম্পর্কে এমন মত প্রকাশ করেন। তার মতে, কোনোভাবেই ওমিক্রনকে এড়ানো সম্ভব হবে না। সকলেই এর দ্বারা আক্রান্ত হবে। তবে তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে একটা বড় অংশ জানতেই পারিনি কবে আমরা সংক্রমিত হয়েছিলাম। সম্ভবত ৮০ শতাংশ মানুষ বুঝতেই পারেননি কবে তাঁরা আক্রান্ত হয়েছিলেন।

তিনি দাবি করেন, যেহেতু প্রতি দু’দিনে ভাইরাস তাঁর সংক্রমণের হার দ্বিগুণ করে ফেলছে, তাই কোনো ব্যক্তির কোভিড পরীক্ষা হয়ে সংক্রমণের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার আগেই তাঁর দ্বারা অসংখ্য মানুষ সংক্রমিত হয়ে যাচ্ছেন। এ পরিস্থিতিতে তাই ওমিক্রনকে আটকানো অসম্ভব।

booster dose omicronওমিক্রন থেকে বাঁচতে দেয়া হচ্ছে বুস্টার ডোজ

ড. জয়াপ্রকাশ জানাচ্ছেন, ওমিক্রন রোধে যে বুস্টার তথা প্রিকশনারি ডোজের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে বা হচ্ছে তা ছিল কেবল পরামর্শ। নির্দিষ্ট করে এটা করতেই হবে, কোনো বিশেষজ্ঞই এমন কোনো কথা বলেননি। তবে এর মধ্যেই তিনি আশ্বস্ত করেন, যেহেতু ওমিক্রন ততটা বিপজ্জনক নয়, খুব বেশি মানুষকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হচ্ছে না, তাই কারো আতঙ্ক হওয়ার প্রয়োজন নেই।

উল্লেখ্য, গতকাল মঙ্গলবার বিশ্বজুড়ে করোনায় নতুন করে আক্রান্তের পরিমাণ ছিল ২৬ লাখ ৫০ হাজারের বেশি। গত কয়েকদিন ধরেই এ সংখ্যাটা ২০ লাখের ওপর দিয়ে ঘোরাঘুরি করছে। ফলে ড. জয়াপ্রকাশের কথাই সত্য বলে মনে হচ্ছে, বুস্টার ডোজ দেওয়া হোক বা না হোক ওমিক্রনে আক্রান্ত হবে সবাই।