advertisement
আপনি পড়ছেন

করোনার টিকা নিতে ভয় পায়, গড়িমসি করে এমন লোকের সংখ্যা নেহায়েত কম নয়। কিন্তু এদের অধিকাংশই অশিক্ষিত বা নিম্নশ্রেণির লোক। তবে গত কয়েকদিনের মধ্যে সার্বিয়ান টেনিস তারকা নোভাক জকোভিচ করোনার টিকা নিয়ে যা করেছেন, তা সত্যিই কৌতুহলের জন্ম দিয়েছে। টিকা নিতে না চাওয়ায় তাকে শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে না খেলেই ফিরতে হয়। জল্পনা আরো বেড়েছে, যখন শোনা গেছে, জকোভিচ নিজেই এ ধরনের একটি টিকা কোম্পানির মালিক।

djokovic has 80pc stake in biotech firmসার্বিয়ান টেনিস তারকা নোভাক জকোভিচ

জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের টিকা প্রস্তুত করে এমন একটি সংস্থার পুরো ৮০ শতাংশের মালিকানা রয়েছে জকোভিচ ও তার স্ত্রী জেলেনার। টিকা উৎপাদন সাবলীল রাখতে সার্বিয়ান এ তারকা এ সংস্থার সিংহভাগ শেয়ার কিনে নেন ২০২০ সালে।

করোনার টিকা উৎপাদনকারী বায়োটেক ওই সংস্থার নাম হল কোয়ান্ট বায়োরেস। তার প্রধান নির্বাহী হলেন ইভান লোনকারেভিক। ডেনমার্কের ব্যবসায়িক রেজিস্টারের তথ্য অনুসারে ৩৪ বছরের সার্বিয়ান টেনিস তারকা ও তার স্ত্রী জেলেনা কোয়ান্ট বায়োরেস কোম্পানির ৮০ শতাংশ শেয়ার কিনে নিয়েছেন। ড্যানিশ ওই কোম্পানির সিইও গত বুধবার এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা জানিয়ে বলেন, জকোভিচ হলেন আমার কোম্পানির একজন প্রতিষ্ঠাতা। ২০২০ সালের জুনে যা আমরা প্রতিষ্ঠা করেছি।

djokovic in actionঅ্যাকশনে জকোভিচ

এই সংস্থার ওষুধ আপাতত ডেনমার্ক, স্লোভেনিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও ব্রিটেনে বিতরণ হচ্ছে। কোয়ান্ট বায়োরেস আগামী গ্রীষ্মে আমেরিকায় ক্লিনিকাল ট্রায়ালের পরিকল্পনা করেছে। প্রায় ২০জন কর্মী এই সংস্থার সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন।

সংস্থার প্রধান নির্বাহী ইভান লোনকারেভিক বলেন, আমরা একটা নতুন প্রযুক্তি আনছি যা মানুষের জন্য ক্ষতিকর বিশেষ করে মহামারির মতো ভাইরাসগুলোকে বিনষ্ট করতে পারবে। এছাড়া কোভিড ভাইরাসকে নিছক একটা সাধারণ ভাইরাসে নামিয়ে আনাই হল আমাদের লক্ষ্য। সেই সঙ্গে তিনি এ-ও প্রত্যাশা করেন, কোভিডের মোকাবেলায় যদি আমরা সফল হই তাহলে অন্যান্য ভাইরাসকে বিনষ্ট করাও আমাদের জন্য অসম্ভব হবে না।