advertisement
আপনি পড়ছেন

কাতার, তুরস্ক এবং আফগানিস্তানের তালেবান নেতৃত্বাধীন সরকার বৃহস্পতিবার কাবুল হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পরিচালনার ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি মূল বিষয়ে সম্মত হয়েছে। কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার দোহায় কাবুল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপনা ও পরিচালনার বিষয়ে একটি ত্রিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। খবর ডেইলি সাবাহ।

kabul hamid karzai international airportকাবুল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, ফাইল ছবি

মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বৈঠকে তিন দেশের প্রতিনিধিরা বিমানবন্দরটি কীভাবে পরিচালনা করতে হবে সে সম্পর্কে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে একমত হয়েছেন। দোহার বৈঠকটি পূর্ববর্তী আলোচনার ধারাবাহিকতা হিসেবে অনুষ্ঠিত হয়, যার সর্বশেষ রাউন্ডটি গত সপ্তাহে কাবুলে হয়েছিল। আলোচনার চূড়ান্ত পর্ব আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে।

তালেবান দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর তুরস্ক কাবুল বিমানবন্দর চালু করতে প্রযুক্তিগত ও নিরাপত্তা সহায়তার প্রস্তাব দেয়। বিদেশি বাহিনী নিয়ন্ত্রিত বিমানবন্দরটি হস্তান্তরের পর আফগানিস্তানকে বিশ্বের সাথে সংযুক্ত রাখতে এবং বিভিন্ন সাহায্যের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ বজায় রাখার জন্য সেটি সচল করা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়ায়।

kabul international airport 2কাবুল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, ফাইল ছবি

আফগানিস্তানের সাম্প্রতিক ঘটনাবলীর ব্যাপারে তুর্কি সরকার একটি বাস্তববাদী পন্থা নিয়েছে। আফগানিস্তনের নতুন বাস্তবতায় আঙ্কারা জানিয়েছে, তারা সমস্ত প্রাসঙ্গিক বিষয়ে তালেবান নেতাদের সাথে যোগাযোগ চালু রেখে সেই অনুযায়ী এগিয়ে যাবে।

ন্যাটো সদস্য তুরস্ক আফগানিস্তানে তার দূতাবাসের কার্যক্রম বজায় রেখেছে। যদিও পশ্চিমা দেশগুলো তালেবানের দখলের পর দূতাবাসের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করে। তালেবান সরকার সকল পশ্চিমা দেশকে কাবুলে দূতাবাস খোলার আহ্বান জানিয়ে আসছে। তুরস্ক জানিয়ে দিয়েছে, অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রশাসন গঠন করলে তারা তালেবানদের সাথে সম্পূর্ণভাবে একমত হয়ে কাজ করবে।