advertisement
আপনি পড়ছেন

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বুধবার পাকিস্তানের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারির সাথে বৈঠক করেছেন। বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসন পাকিস্তানের নতুন সরকারের সাথে কাজ করতে উন্মুখ হয়ে আছে বলে ব্লিঙ্কেন উল্লেখ করেন। দুই দেশের মধ্যে ‌'অংশীদারিত্ব সম্প্রসারণ' নিয়েও আলোচনা হয়েছে। শীর্ষ এই দুই নেতার বৈঠকের দরুন দেশদুটির সম্পর্ক নতুন পথে গড়াতে পারে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন কূটনীতিকরা। আরিয়ানা নিউজ।

antony blinken and bilawal bhutto zardariব্লিঙ্কেন-বিলাওয়াল বৈঠক

নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সহযোগিতায় যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক খাদ্য নিরাপত্তা সভার ফাঁকে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বিলাওয়াল এবং ব্লিঙ্কেনের মধ্যে বৈঠকটি এমন সময় অনুষ্ঠিত হলো যখন পাকিস্তান এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে উত্তেজনাপূর্ণ সম্পর্কের পটভূমি তৈরি হয়েছে।

পিটিআই সরকারের সময় দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক টানটান অবস্থায় ছিল। সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সরাসরি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে তার ক্ষমতাচ্যুতির জন্য দায়ী করলে দুদেশের সম্পর্ক তলানিতে গিয়ে ঠেকে।

ব্লিঙ্কেন বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র অর্থনৈতিক এবং আঞ্চলিক নিরাপত্তা সমস্যা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে পাকিস্তানের সাথে অংশীদারিত্ব সম্পর্ক প্রসারিত করতে আগ্রহী।

মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ব্লিঙ্কেন বিলাওয়ালের সঙ্গে দেখা করেছেন একটি শক্তিশালী ও সমৃদ্ধ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক গড়ার আকাঙ্ক্ষা নিয়ে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ব্লিঙ্কেন জলবায়ু, বিনিয়োগ, বাণিজ্য এবং স্বাস্থ্যের পাশাপাশি দুই দেশের জনগণের মধ্যে সম্পর্ক সম্প্রসারণের মতো বিষয়ে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করেছেন। দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রী আঞ্চলিক শান্তি, সন্ত্রাসবাদ দমন, আফগান স্থিতিশীলতা, ইউক্রেনের প্রতি সমর্থন এবং গণতান্ত্রিক নীতির বিষয়ে মার্কিন-পাকিস্তান সহযোগিতায় জোর দেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল বলেন, জি-৭৭ এর বর্তমান সভাপতি হিসাবে পাকিস্তান বিশ্ব সংস্থায় উন্নয়নশীল দেশগুলোর প্রতিনিধিত্ব করছে। সদস্য দেশগুলোর উদ্দেশ্যগুলোতে জাতিসংঘ মহাসচিবের সমর্থন রয়েছে। আমরা এ জন্য জাতিসংঘ মহাসচিবকে স্বাগত জানাই।