আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 26 মিনিট আগে

রুপালী পর্দার আলো-ঝলমল দুনিয়ায় ক্যারিয়ার গড়তে চায় অনেক ছেলে-মেয়েই। অনেকে নিজের স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে নেমে সফল হয়। কেউ আবার সর্বস্ব খুইয়ে নিদারুণ দুর্বিসহ জীবন যাপন করেন। ভারতীয় রুপালী পর্দার দৌড়ে ছিটকে পড়া এমনই একজন হচ্ছেন মডেল গীতাঞ্জলি।

mitali sharma gitanjoly

মডেলিংয়ে টিকে থাকতে পারেননি তিনি। তাই গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডের চোখ ধাঁধানো আলোর দুনিয়া থেকে হারিয়ে গেছেন অনেক আগেই। এর আগে ২০০৭ সালে আচমকা এক দিন তাকে রাস্তায় রাস্তায় উদ্দেশ্যহীনভাবে ঘুরে বেড়াতে গিয়েছিলো তাকে। তখন তার চোখে-মুখে, শরীরের কোথাও গ্ল্যামারের চিহ্নমাত্রও ছিল না। একেবারে যেন পথের ভিখারীদের ন্যায় অবস্থা।

মিতালি শর্মা নামের এ মেয়েটির বলিউডে বড় পর্দায় কাজ করার স্বপ্ন ছিল। প্রথম দিকে মডেল হিসেবে বেশ নামও করেছিলেন তিনি। এখানে এসে নাম বদলিয়ে মিতালি থেকে হয়েছিলেন গীতাঞ্জলি। বেশ কয়েকটি আঞ্চলিক ভাষার ছবিতেও অভিনয় করেছিলেন তিনি। কিন্তু বাবা মা চাননি মেয়ে পেশা হিসেবে এই জগতকে বেছে নিক। তাই বাবা মার অবাধ্য হয়ে এই পেশা বেছে নেয়ায় তাদের সঙ্গে সম্পর্ক আর টেকেনি।

তবে ক্যারিয়ার শুরুর কয়েক বছর পরই আকাশে মেঘ জমতে থাকে গীতাঞ্জলির। ধীরে ধীরে কাজ হাতছাড়া হতে থাকে তার। পরে অর্থকষ্টের হতাশায় নেশা গ্রহণ শুরু করেন তিনি। ওই মুহূর্তে বাড়ি ফিরে যাওয়ারও উপায় ছিল না তার। তাই বাধ্য হয়ে পরিচয় লুকিয়ে বোরখা পরে মুম্বাইয়ের লোখান্ডওয়ালা এলাকার রাস্তায় রাস্তায় ভিক্ষে করে পেট চালাতে থাকেন।

এতোদিন গীতাঞ্জলি ও তার ভিক্ষের বিষয়টি আড়ালে চাপা পড়লেও সম্প্রতি আবার চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ায় ফের আলোচনায় এসেছেন সাবেক এই মডেল কন্যা। পুলিশ জানিয়েছে, গত দুদিন ধরে না খাওয়ার খিধে মিটাতে ওশিওয়াড়ার একটি হাউজিং সোসাইটির কাছে গাড়ির কাঁচ ভেঙে কিছু একটি চুরি করতে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু সেটা আর সম্ভব হয়নি। ধরা পড়ে যান পুলিশের হাতে। তবে পুলিশ গীতাঞ্জলিকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে তাঁর বাবা-মার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন 

বিয়েতে কনে চেয়ে নিলেন দশ হাজার গাছ!

ডিমের তৈরি বিয়ের পোশাক!

ছবির ট্রেলার দেখেই আত্মহত্যা করলেন প্রযোজক!

ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা 'র' বিষয়ে কিছু তথ্য

Add comment

Security code
Refresh