advertisement
আপনি দেখছেন

শিগগিরই ভোটারদের হাতে চলে আসছে জাতীয় পরিচয়পত্রের স্মার্ট রুপ। তাই ভোটারদের কাছে নির্ভুল স্মার্ট এনআইডি প্রদানে ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এ ক্ষেত্রে বর্তমান পরিচয়পত্রে কোন তথ্য-উপাত্তে ভুল থাকলে তা সংশোধন করতে আগামী ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে ভুল সংশোধন না করে নিলে ভুল তথ্য নিয়েই হাতে পৌছবে স্মার্ট কার্ড।

bangladesh smart national id card

বর্তমান জাতীয় পরিচয়পত্রে কিংবা ভোটার ডাটাবেসে রাখা কোন তথ্যে ভুল আছে কিনা তা নির্বাচন কমিশনের www.ec.org.bd অথবা www.nidw.gov.bd এই ওয়েবে প্রবেশ করে যে কেউ দেখে নিতে পারবেন। কোন ভুল চোখে পড়লে তা সংশোধনের জন্য এই সাইট থেকে একটি ফর্ম ডাউনলোড করে তা পূরণ করে পাঠানো যাবে। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট উপজেলা অথবা থানার নির্বাচন অফিস থেকেও তথ্য সংশোধনের আবেদন ফরম সংগ্রহ করে তা পূরণ করে নির্ধারিত তারিখে মধ্যে জমা দিতে হবে।

এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান এক বিবৃতিতে জানান, 'ভুল সংশোধনের আবেদন পূরণ করে সংশ্লিষ্ট থানা অথবা উপজেলা নির্বাচন অফিসে জমা দিতে হবে। তারপর আবেদনপত্রের সঙ্গে সংশোধনের স্বপক্ষে যে প্রমাণাদি দেয়া হবে তার সাথে ২০০ টাকা ফি ট্রেজারি চালান অথবা ব্যাংক ড্রাফট বা পে-অর্ডার জমা দিয়ে আসলেই পরবর্তী স্মার্টকার্ডে সংশোধন হয়ে আসবে আগের ভুলগুলো।'

এছাড়াও জনসংযোগ বিভাগের পরিচালকের বিবৃতি থেকে আরো জানা যায়, সংশোধনের জন্য নির্ধারিত ফি ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে অথবা সচিব, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অনুকূলে পে-অর্ডার বা ব্যাংক ড্রাফটের মাধ্যমে ভ্যাটসহ পরিশোধ করতে পারবে আবেদনকারীরা।

সংশোধন ফি বাংলাদেশ ব্যাংক এবং সোনালী ব্যাংকের সকল শাখায় ‘১-০৬০১-০০০১-১৮৪৭- জাতীয় পরিচয়পত্র ফি’ কোডে জমা দেয়া যাবে এবং ফির ওপর নির্ধারিত ১৫ শতাংশ ভ্যাট ‘১-১১৩৩-০০০০-০৩১১ মূল্য সংযোজন কর’ কোডে জমা দিতে হবে।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন 

আদালত অবমাননা আইন হচ্ছে

মোটর সাইকেল: একজনের বেশি আরোহী উঠার উপর নিষেধাজ্ঞা

প্রধানমন্ত্রী: বিদেশি হত্যায় জামায়াত-বিএনপির হাত

sheikh mujib 2020