advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নে দুর্বৃত্তদের ব্রাশ ফায়ারে নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও শিক্ষকসহ সাত জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধসহ আরো ১৪ জন আহত হয়েছেন। সোমবার ১৮ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় নির্বাচনী কাজ শেষে উপজেলা সদরে ফেরার পথে সিজকের নয় কিলো এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

rangamati shooting 19

নিহতরা হলেন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও শিক্ষক মো. আমির হোসেন, আনসার বাহিনীর ভিডিপি সদস্য আল আমিন (১৭), বিলকিস বেগম (৪০), মিহির কান্তি দত্ত (৪০), জাহানারা বেগম (৪০), পথচারী মন্টু চাকমা (২৭) ও মাদ্রাসা শিক্ষক তৈয়ব আলী।

এ ঘটনায় আহত ১১ জনকে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে হেলিকপ্টারে করে রাত সাড়ে ১০টায় চট্টগ্রামের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নেয়া হয়। পথে তৈয়ব আলী যান। বাকি ১০ জনকে সিএমএইচে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ মঞ্জুরুল আলম জানান, ভোটগ্রহণ শেষে সোমবার সন্ধ্যায় ব্যালট বাক্স নিয়ে সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারে নেতৃত্বে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপজেলা পরিষদে ফিরছিলেন। পথেই ব্যালট বাক্স ছিনতাই করতে তাদের গাড়িবহর লক্ষ্য করে ব্রাশ ফায়ার করে দুর্বৃত্তরা। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচ জনের মৃত্যু হয়। পরে হাসপাতালে নেয়ার পর মন্টু চাকমা ও তৈয়ব আলী মারা যান। এ ঘটনায় আরো ১৪ জন আহত হয়েছেন।

sheikh mujib 2020