advertisement
আপনি দেখছেন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারেক আহমদ সিদ্দিকি বলেছেন, ‘মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মুহাম্মদ বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রশংসা করেছেন। বাংলাদেশ উন্নয়নের পথেই হাঁটছে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।’ গতকাল বুধবার লাঙ্কাওই ইন্টারন্যাশনাল মালয়েশিয়া মেরিটাইম অ্যান্ড অ্যারোস্কেস এক্সিবিশনে মাহাথিরের সঙ্গে সাক্ষাত শেষে তিনি এ কথা বলেন।

mahathir mohammad tarek ahmed siddiqui

এ সাক্ষাতকালে তারেক আহমদ সিদ্দিকি বলেন, যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির দিকে নিয়ে গিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধি এসেছে। এ সময় মাহাথির মুহাম্মদ বলেন, ‘আজকের বাংলাদেশ উন্নয়নের সঠিক পথে হাঁটছে।”

তিনি বলেন, ‘মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দ্বিপাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। দুই দেশের নতুন সরকারের সম্পর্কে নবউন্মেষ হবে বলে প্রত্যাশা করেন।

এ সাক্ষাতে মাহাথির মুহাম্মদের কাছে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাংলাদেশের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী উপদেষ্টা তারেক আহমদ সিদ্দিকি। এ সময় তিনি দেশটিতে বাংলাদেশিদের কর্মসংস্থানের সুযোগ দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপকালে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে দেশটিতে কর্মরত বাংলাদেশিদের বৈধতা সংক্রান্ত সমস্যার সমাধানে অনুরোধ জানানো হয়। সেই সঙ্গে প্রযুক্তিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে নতুন করে নিয়োগেরও অনুরোধ করা হয়। এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আশা প্রকাশ করেছেন মাহাথির মুহাম্মদ।

আলাপে মিয়ানমারের রাখাইনে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেয়া, এ সমস্যার আশু সুষ্ঠু সমাধান, গার্মেন্ট শিল্প, বাণিজ্য ইত্যাদি বিষয়েও কথা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে তার উপদেষ্টা তারেক আহমদ সিদ্দিকি মাহাথির মুহাম্মদকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান। এ সময় তিনি যথা শিগগির ঢাকা সফরে আসার আশ্বাস দিয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের কথা জানান।

এ সময় মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম, বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত, নৌবাহিনী প্রধান রিয়াল অ্যাডমিরাল আওরঙ্গজেব এবং দূতাবাসের প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা এয়ার কমডোর মো. হুমায়ূন কবির উপস্থিত ছিলেন।