advertisement
আপনি দেখছেন

মধ্যপ্রচ্যগামী সকল বিমান ভাড়া ও বিদেশগামী কর্মীদের মেডিকেল ফি বাড়ানোয় অভিবাসন ব্যয় বৃদ্ধির আশঙ্কা করছে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রটিং এজেন্সিস (বায়রা)। তাই এসব ফি দ্রুত কমানোর দাবি জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

medical fee reduce

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর ইস্কাটনের বায়রা কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান সংগঠনের সভাপতি ও সংসদ সদস্য বেনজির আহমেদ।

সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে ইতিহাদ এয়ারলাইন্স, ফ্লাই দুবাই, এয়ার এরাবিয়া এবং জেট এয়ারওয়েজ ফ্লাইট বন্ধ করে দেয়া হয়। এর প্রভাবে ওই সকল রুটে বাংলাদেশ বিমানসহ অন্য সকল এয়ারলাইন্স ভাড়া বাড়ানো হয়।

বেনজির আহমেদ বলেন, স্বাভাবিক সময়ে ঢাকা থেকে জেদ্দা ওয়ানওয়ে টিকিটে ভাড়া ছিল ২৮ হাজার টাকার মতো। কিন্তু সেই ভাড়া এখন নেয়া হচ্ছে ৪৭ থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত। মেডিকেল খরচ আগে ৫ হাজার ৮০০ টাকা নেয়া হলেও এখন সেটা করা হয়েছে ৮ হাজার ৫০০ টাকা।

এতে করে অভিবাসী প্রত্যাশী কর্মীদের ব্যয় বেড়ে যাচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন বায়রার নেতারা।

উড়োজাহাজের ভাড়া বৃদ্ধি রোধে ‘ওপেন স্কাই পলিসি’ চালুর পরামর্শ দেয় বায়রা।

সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে বায়রা মহাসচিব শামীম আহমেদ চৌধুরী নোমান বলেন, অভিবাসন ব্যয় বৃদ্ধির জন্য শুধু রিক্রুটিং এজেন্সি দায়ী নয়। এর মাঝে কয়েক হাত বদল হয় একজন কর্মী। হাত বদলের কারণেই ব্যয় বাড়ে। তাই ব্যয় কমাতে কর্মী পাঠানোর পুরো প্রক্রিয়া অনলাইনে করার পদ্ধতি চালু করা হচ্ছে বলেও জানান বায়রা মহাসচিব।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট শফিকুল আলম ফিরোজ, সহসভাপতির মনসুর আহমেদ কালাম, যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম, এডভোকেট সাজ্জাদ হোসেন, নির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ আলী ও লিমা বেগমসহ সংগঠনের নেতারা। ইউএনবি।