advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 12 মিনিট আগে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত খুনিরা ছাড় পাবে না।

pm sheikh hasina 2

শুক্রবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সভায় সূচনা বক্তব্যে শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। খবর: বাসস।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘খুনিদের কয়েকজন ইতোমধ্যে গ্রেফতার হয়েছে। অন্যরাও শিগগির গ্রেফতার হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বাস করি যে, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত, যাতে ভবিষ্যতে কেউ এ ধরনের জঘন্য অপরাধ করতে না পারে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘কোনো কারণ ছাড়া একজন মাদ্রাসাছাত্রীকে একজন অধ্যক্ষের আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করার মতো জঘন্য ঘটনার নিন্দা জানানোর ভাষা আমার নেই।’

নুসরাতের জীবন বাঁচাতে সরকারের প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা মেয়েটিকে বাঁচাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। এমনকি আমরা মেয়েটিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর পাঠাতে সেখানকার চিকিৎসকদের মতামত নিয়েছি, কিন্তু আমরা কোনো ইতিবাচক সাড়া পাইনি।’

উল্লেখ্য, গত ৬ এপ্রিল নুসরাতকে মাদ্রাসার ছাদে ডেকে নিয়ে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। গত বুধবার রাতে নুসরাত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এ সময় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, ২০১৩ ও ২০১৫ সালে জাতীয় নির্বাচন বানচাল এবং নির্বাচিত আওয়ামী লীগ সরকারের পতন ঘটানোর নামে বিএনপি-জামায়াত জীবন্ত মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করার সংস্কৃতি চালু করে।

প্রধানমন্ত্রী রাজধানীর বনানীর এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার উল্লেখ করে আগুনের মতো যেকোনো দুযোর্গের সময় যাতে সহজে বেরিয়ে আসতে পারে, সেজন্য ভবনে পর্যাপ্ত জায়গা রাখতে সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টির আহ্বান জানান।

এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানান। আগামী ১৪ এপ্রিল সারাদেশে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত হবে।

sheikh mujib 2020