advertisement
আপনি পড়ছেন

এখন থেকে সরকারি ক্যাডার, নন-ক্যাডার ও বিভিন্ন সংস্থায় সরাসরি নিয়োগপ্রাপ্তরা চাকরিতে প্রবেশের সময় নবম গ্রেড পাবেন। তবে ক্যাডারভুক্তরা একটি বাড়তি ইনক্রিমেন্ট পাবেন বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

abul mal abdul muhit

বৃহম্পতিবার সচিবালয়ে বেতন বৈষম্য নিরসন সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সাথে অর্থমন্ত্রী বলেন, তিনটি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এরমধ্যে দু'টি বিষয় একটু টেকনিক্যাল ধরনের। অষ্টম ও নবম গ্রেড- এ দু'টি নিয়ে একটা সমস্যা ছিল। এখানে পরিবর্তন আনা হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী ছাড়াও বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ, আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব আবুল কালাম আজাদ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাহবুব আহমেদ, জনপ্রশাসন সচিব ড. কামাল আবু নাসের চৌধুরী। বৈঠকে অর্থমন্ত্রী সভাপতিত্ব করেন।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাহবুব আহমেদ জানান, এখন নবম গ্রেডটাকে এন্ট্রি পদ করা হয়েছে। প্রথম শ্রেণির ক্যাডার, নন-ক্যাডার কিংবা বিভিন্ন সংস্থায় যারা সরাসরি নিয়োগপ্রাপ্ত হবেন তারা সকলেই একই স্কেলে বেতন পাবেন। তবে ক্যাডারভুক্তরা একটি ইনক্রিমেন্ট পাবেন।

সিলেকশন গ্রেডের পরিবর্তে ৫০ ভাগ প্রমোশন দেয়া হবে জানিয়ে সরকারি কলেজ শিক্ষকদের বিষয়ে অর্থসচিব জানান, শিক্ষকরা চতুর্থ গ্রেড থেকে তৃতীয় গ্রেডে উন্নীত হওয়ার ক্ষেত্রে আগে ৫০ ভাগ সিলেকশন গ্রেড পেতেন, এখন ৫০ ভাগ প্রমোশন দেয়া হবে। প্রমোশন পেয়ে তারা উপরের গ্রেডে যাবেন।

এদিকে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সাথে তিন সচিব বৈঠক করে তাঁদের বেতন বৈষম্য নিরসন করার উদ্যোগ নিয়েছেন বলে জানান অর্থমন্ত্রী।

 

আপনি আরও পড়তে পারেন

ইকবাল মাহমুদ দুদকের নতুন চেয়ারম্যান

মুসা বিন শমসেরের অতো সম্পদ নেই!

রাকেশ আস্তানার সফটওয়্যারেই আস্থা বাংলাদেশ ব্যাংকের