advertisement
আপনি দেখছেন

আলোচিত আওয়ামী লীগ নেত্রী ও সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি তামান্না নুসরাত বুবলী দল থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পর এবার আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছেন। গতকাল সোমবার এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে এ হুমকি দেন তিনি। তবে পোস্টটি দেয়ার ঘণ্টাখানেক পর সরিয়ে নেয়া হলেও এর স্ক্রিনশট এখন অনেকের ফেসবুকে ঘুরছে।

tamanna nusrat bublyতামান্না নুসরাত বুবলী

নরসিংদীর প্রয়াত মেয়র লোকমান হোসেনের স্ত্রী বুবলী তার ফেসবুক পোস্টে পরীক্ষায় জালিয়াতির অপরাধকে তেমন কিছু নয় বলে দাবি করেছেন। সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি লেখেন, ‘কিছু অপশক্তি পেছনে লেগেছে, কত কিছু ঘটনা দেশে ঘটে, এতে কেউ লেখালেখি করে না। আপনারা এটা নিয়ে এমনভাবে লিখছেন যেন আমার জন্য ৫০ জীবন শেষ হয়ে গেছে, লুটপাট হয়েছে, সর্বনাশ হয়েছে অনেকের।’

এরপরই বুবলী লেখেন, ‘আমার এ জীবনে পাওয়ার চাইতে মনের দুঃখে মরেছি অনেকবার, বারবার মরার চাইতে একবারে মরে গেলেই ভালো মনে করি।’ এ বিষয়ে জানতে বেশ কয়েকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

tamanna nusrat bubly fb postতামান্না নুসরাত বুবলীর ফেসবুক পোস্টটি

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বিএ পরীক্ষায় অন্যজনকে দিয়ে প্রক্সি দেয়ানোর ঘটনা প্রকাশ পেলে জালিয়াতির জন্য তামান্না নুসরাত বুবলীর সব পরীক্ষা বাতিল করে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে দেশব্যাপী সমালোচনার মুখে গত শুক্রবার নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক পদ থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয়।

প্রসঙ্গত, এমপি তামান্না নুসরাত বুবলী ২০১১ সালে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত নরসিংদীর তৎকালীন পৌরমেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেনের স্ত্রী। স্বামীর দিক বিবেচনায় নিয়ে সংরক্ষিত আসনে এমপি করা হয় বুবলীকে। একাদশ সংসদ নির্বাচনের সময় নির্বাচন কমিশনে জমা দেয়া হলফনামা অনুযায়ী বুবলী এইচএসসি পাস। পরে শিক্ষাগত যোগ্যতা বাড়িয়ে নিতে তিনি বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএ কোর্সে ভর্তি হন। কিন্তু বিএ পরীক্ষায় তার হয়ে অন্য একজন পরীক্ষা দেয়।