advertisement
আপনি দেখছেন

দেশের সীমান্তে ভারতীয় অনুপ্রবেশকারীদের সম্পর্কে কিছুই জানেন না বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। মঙ্গলবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে দুই দিনব্যাপী ৩৩তম সিএসিসিআই সম্মেলনে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

foreign minister abdul momen 2পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন

ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘এ সম্পর্কে তেমন কিছুই আমার জানা নেই, তবে পত্রপত্রিকায় দেখেছি।’ সরকারিভাবেও এ ব্যাপারটা নিয়ে কোনো সংবাদ নেই। তিনি বলেন, পত্রপত্রিকায় যে সংবাদ আসে, সেগুলো মিথ্যা ও অতিরঞ্জিত। আসল সত্যটা এখনো জানা যায়নি। জানার পর এ নিয়ে বিস্তারিত বলা যাবে।

সীমান্তে অনুপ্রবেশের ঘটনা দেশে কোনো প্রভাব ফেলবে না জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ব্যাপারটা সম্পূর্ণই ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এ নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। তাছাড়া প্রক্রিয়াটাও অনেক দীর্ঘস্থায়ী।

আব্দুল মোমেন বলেন, ভারতের সাথে বাংলাদেশের যে বন্ধুত্ব হয়েছে, তা প্রতিবেশী আর কোনো দেশের মধ্যে নাই। কয়েকটি বড় ইস্যু নিয়ে ইতোমধ্যে তাদের সাথে আলোচনা শেষ হয়েছে। তাই ভারতের ওপর এ ব্যাপারে বিশ্বাস করা যায়।

জানা যায়, নভেম্বরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত সীমান্ত দিয়ে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে প্রায় পাঁচ শতাধিক লোককে আটক করেছে বিজিবি।

আটককৃতদের বরাত দিয়ে বিজিবি ও পুলিশ জানায়, আটককৃতদের বেশির ভাগই ভারতীয় বাঙালি মুসলমান। তারা এনআরসি থেকে বাদ পড়া, হয়রানি ও আটকের আশঙ্কায় ভারত থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আসছেন। সীমান্ত পার হতে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীরা তাদের বাধা দেয়ার বদলে কার্যত সহায়তা করছেন।

তারা আরও জানান, আসামের এনআরসি থেকে বাদ পড়া অনেকে সেখান থেকে বেঙ্গালুরুতে চলে যান। সম্প্রতি বেঙ্গালুরুতে ভারতীয় পুলিশ অবৈধ অভিবাসী বিরোধী অভিযান শুরু করলে তারা পালিয়ে এখন বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে। ফলে চলতি মাসের প্রায় প্রতিদিনই সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করছে ভারতীয়রা।