advertisement
আপনি দেখছেন

বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের কোনো পরীক্ষায় অংশ না নিয়ে এবং বিচারিক আদালতের আইনজীবী সনদ না পেলেও একজনকে হাইকোর্ট বিভাগের আইনজীবী হিসেবে সনদ দানের গেজেট চ্যালেঞ্জ করে করা রিটের ওপর শুনানিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট।

high court 2হাইকোর্ট

মঙ্গলবার রিট আবেদনটি শুনানির জন্য উত্থাপন করা হলে বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ শুনানি করতে অপারগতার কথা জানান।

আদালত বলেন, ‘এই রিট মামলা শুনতে আমরা অপারগতা প্রকাশ করছি।’

পরে রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন জানান, রিট আবেদনটি অন্য কোনো বেঞ্চে শুনানির জন্য উত্থাপন করা হবে।

এর আগে গত ২১ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইশরাত হাসান ও ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বাদী হয়ে এই রিট করেন।

রিট আবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল পরীক্ষায় কয়েকবার অংশ নিয়েও কৃতকার্য হতে পারেননি হাইকোর্টের বিচারপতির ছেলে মো. জুম্মান সিদ্দিকী। অথচ গত ১৯ সেপ্টেম্বর জুম্মান সিদ্দিকীকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়, যার গেজেট প্রকাশ করা হয় গত ৩১ অক্টোবর।

রিটে ওই গেজেট এবং ১৯৭২ সালের বাংলাদেশ বার কাউন্সিল অর্ডারের ২১(১)(খ) ও ৩০(৩) ধারা চ্যালেঞ্জ করা হয়।

ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন জানান, একজন আইনের ডিগ্রিধারীকে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের রুল ও অর্ডারের বাইরে গিয়ে কোনোরকম পরীক্ষা ছাড়াই হাইকোর্ট বিভাগের আইনজীবী হিসেবে ঘোষণা করা হয়, যা বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের রুলস এবং অর্ডারের লঙ্ঘন। তাই বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হয়।

রিটে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান, বার কাউন্সিলের সচিব ও সংশ্লিষ্ট আইনজীবীকে বিবাদী করা হয়েছে। ইউএনবি।