advertisement
আপনি দেখছেন

মাস্তানি আর গডফাদারগিরি করে নেতা হওয়া যাবে না বলে আওয়ামী লীগের লোকজনকে সতর্ক করে দিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

obaidul kader in chittagongচট্টগ্রাম নগরীর লালদীঘির মাঠে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

তিনি বলেন, ‘আমাদের বহু কর্মী আছেন। খারাপ লোকের কোনো প্রয়োজন নেই। বুয়েটে আবরারকে হত্যাকারীর মতো কর্মীর আমাদের প্রয়োজন নেই। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কথায় কথায় কলহ, মাস্তানি আর মারামারি করা কর্মীদের আমাদের প্রয়োজন নেই। যারা রাজশাহীতে অধ্যক্ষকে পানিতে ফেলে দেয় তেমন কর্মীর আমাদের কোনো প্রয়োজন নেই।’

শনিবার দুপুরে চট্টগ্রাম নগরীর লালদীঘির মাঠে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখার সময় মাঠে কর্মীদের মধ্যে বিশৃঙ্খলা ও পাল্টাপাল্টি স্লোগানে বিরক্তি প্রকাশ করে তিনি এসব করা বলেন। সম্মেলন উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন।

অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের বক্তব্য শুরু করতেই মাঠের কর্মীরা এবিএম ফজলে করিম, এমএ সালাম ও শেখ আতার নামে পাল্টাপাল্টি স্লোগান দেয়া শুরু করে।

এ সময় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, ‘আপনারা বাড়াবাড়ি করছেন। বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি আর আপনারা স্লোগান দিচ্ছেন। আপনাদের স্লোগানে আমরা নেতা বানাব? স্লোগান দিয়ে, মাঠ দখল করে, মাস্তানি করে নেতা হওয়ার দিন শেষ। এখন নেতৃত্বে আসবেন দলের প্রতি নিবেদিতপ্রাণ পরিচ্ছন্ন ইমেজের কর্মীরা।’

ওবায়দুল কাদের জানান, ঢাকা মহানগরে যাদের নামে বেশি স্লোগান, যাদের নামে বেশি বিলবোর্ড, যাদের নামে বেশি পোস্টার ছিল তারা কেউ সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক হতে পারেননি। ‘কারও স্লোগানে আমরা নেতা বানাব না।’

‘রাজনীতি বীরের জন্য, কাপুরুষরা কখনও সফল হতে পারেন না। আজ নেতা হতে না পারলে কাল হবেন। দল ত্যাগী ও নিবেদিতদের অবশ্যই মূল্যায়ন করবে। দলের প্রতি নিবেদিতপ্রাণ পরিচ্ছন্ন ইমেজের কর্মীরা এখন নেতৃত্বে আসবেন। শুদ্ধি অভিযান সফল করতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর সবকিছুতে নজরদারি আছে। কে কখন জালে আটকাবে জানি না,’ যোগ করেন তিনি।

সেতুমন্ত্রী আরও বলেন, ‘চট্টগ্রাম যেন খারাপ খবরের শিরোনাম না হয়, এটাই প্রত্যাশা করি। এ নগরে মেট্রো রেল হবে, টানেলের কাজ চলছে, চার-ছয় লেন রাস্তা হয়েছে। কালুরঘাটে রেল ও সড়ক সেতু হবে।’

উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এমএ সালামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল মতিন খসরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম ও মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন এবং উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া। ইউএনবি।