advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 39 মিনিট আগে

ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ হওয়া নিয়ে দেশটির উত্তরপূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোতে চলা সহিংস বিক্ষোভের মুখে পূর্বনির্ধারিত সফর বাতিল করেছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। এর কয়েক ঘন্টা পরই ভারত সফর স্থগিত করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। দিল্লির সাথে হাসিনা সরকারের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকা সত্ত্বেও গুরুত্বপূর্ণ দুই মন্ত্রীর সফর বাতিল ও স্থগিত করাকে ‘বার্তা’ হিসেবে দেখছে পশ্চিমবঙ্গের শীর্ষস্থানীয় বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা।

hasina india ministersআনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদন

আজ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে পত্রিকাটি দাবি করেছে, মন্ত্রীদের সফর বাতিলের ঘোষণা এটাই স্পষ্ট করেছে যে, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাসের প্রভাব ঢাকার রাজনৈতিক এবং সামাজিক পরিসরে অসোন্তোষের সৃষ্টি করেছে।

এতে বলা হয়, তিনদিনের ‘ভারত ওশেন সংলাপে’ যোগ দেয়ার লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লগামী বিমানে ওঠার ঠিক কয়েক ঘণ্টা আগে সফর বাতিল করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ১৪ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবী হত্যা দিবস ও ১৬ ডিসেম্বরে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানের কারণে তিনি এ সফর বাতিল করেছেন বলে জানিয়েছেন।

অন্যদিকে মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমার আমন্ত্রণে আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর শিলংয়ে যাওয়ার কথা থাকলেও গতকাল মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে জানানো হয়েছে পরে ‘সুবিধাজনক সময়ে’ মন্ত্রী সফরে যাবেন।

আনন্দবাজার পত্রিকা প্রশ্ন তুলেছে, ওশেন ডায়ালগের দিনতারিখ স্থির হয়েছে আরো মাসখানেক আগেই। এদিকে যেসব অনুষ্ঠানের কারণ দেখিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফর বাতিল করা হয়েছে, সেগুলো অনেক বছর ধরেই নির্ধারিত দিনেই পালন করা হচ্ছে। তবে কেনই পররাষ্ট্রমন্ত্রী সংলাপে যাবার জন্য সম্মতি দিলেন, কেনই বা বিমানে উঠলেন না?

কূটনৈতিক সূত্রের বরাত প্রতিবেদনে বলা হয়, বুধবার মোমেন শেখ হাসিনার বাসভবনে তার সাথে দেখা করতে গেলে এই নির্দেশ নিয়ে ফেরেন।

অন্যদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মেঘালয় সফরে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক কয়েকটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের কথা ছিল।

লোকসভায় পাশের পর বুধবার রাজ্যসভায়ও বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিলটি পাস করে বিজেপি নেতৃত্বাধীন ভারত সরকার। এখন রাষ্ট্রপতি স্বাক্ষর করলেই বিলটি আইনে পরিণত হবে।
বিল পাসের পর থেকেই ত্রিপুরা, আসাম, মণিপুর, অরুণাচলে ব্যাপক বিক্ষোভ চলছে। এমন এক পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের দুই প্রভাবশালী মন্ত্রী দেশটিতে তাদের নির্ধারিত সফর স্থগিত করলেন।

এখন পর্যন্ত সহিংসতায় ৫ জনের মৃত্যুসংবাদ দিয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

sheikh mujib 2020