advertisement
আপনি দেখছেন

আসন্ন ঢাকা-১০ আসনের উপ-নির্বাচনে প্রার্থীরা যেখানে-সেখানে পোস্টার ঝুলাতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। রোবাবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত ইটিআই ভবনে ঢাকা-১০ আসনের প্রার্থীদের সঙ্গে আয়োজিত এক মত বিনিময় সভায় তিনি এ কথা জানান।

cec meeting about dhaka 10 election

এর আগে নির্বাচন কেন্দ্রিক প্রচারে জনদুর্ভোগ ও পরিবেশ দূষণ কমাতে প্রার্থীদের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক সই করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

পরে সিইসি জানান, এই উপ-নির্বাচনে প্রতিটি রাজনৈতিক দল যার যার সুবিধামতো জায়গায় ৫টি করে পথসভা করতে পারবে। তবে কোন জনসভা করতে পারবে না। এছাড়া একদল যে জায়গায় পথসভা করবে, অন্যদল সেখানে যাবে না।

তিনি বলেন, এবার ভোট গ্রহণের দিন গাড়ি চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে মোটরসাইকেল চালানো যাবে না। পাশাপাশি ওই দিন অফিসও খোলা থাকবে। তবে নির্বাচনের আগে সার্কুলার জারি করে দেওয়া হবে, যাতে ভোটাররা অফিসের ফাঁকে গিয়ে ভোট দিয়ে আসতে পারেন।

আরো বলেন, প্রত্যেক প্রার্থী প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে নির্বাচনী ক্যাম্প এবং সেখানে একটি করে মাইক ব্যবহার করতে পারবে। এর বাইরে আর কোথাও মাইক বাজানো যাবে না। প্রার্থীরা নির্ধারিত ২১টি স্থানে পোস্টার ঝুলাতে পারবে। ওই নির্ধারিত স্থানের বাইরে কোথাও পোস্টার ঝুলানো যাবে না। কেউ লেমিনেটেড করা পোস্টার ঝুলাতে পারবে না।

সিইসি বলেন, ঢাকা দুই সিটির নির্বাচনে পোস্টার, মাইকিং, সড়ক ও ফুটপাতের ওপর ক্যাম্প করার কারণে জনদুর্ভোগ ও পরিবেশের দূষণ হয়েছে। পাশাপাশি নির্বাচনে পলিথিন মোড়ানো পোস্টার ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন উচ্চ আদালত। তাই আগামী নির্বাচনে এসব দুর্ভোগ দূর করতে উদ্যোগ নিয়েছে কমিশন। ঢাকা-১০ আসনের উপ-নির্বাচনে প্রচার সমঝোতা সফল হলে জাতীয় পর্যায়ের নির্বাচনে আচরণ বিধিমালা পরিবর্তন করা হবে।