advertisement
আপনি দেখছেন

সরকারি ভবন নির্মানে দুর্নীতির বিষয়টি নতুন কিছু নয়। এতোদিন সরকারি বিভিন্ন ভবন নির্মাণে নিম্ন মানের ইট, বালি, রড ও সিমেন্টের ব্যবহার শোনা গেলেও রডের পরিবর্তে বাঁশের ব্যবহার শোনা গেলো এই প্রথম!

to use of bamboo in building

ঘটনাটি ঘটেছে চুয়াডাঙ্গার দর্শনায় উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্রের অফিস কাম ল্যাবরেটরি ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে। শুধু লোহার রডের পরিবর্তে কাটা বাঁশের ব্যবহারই নয়, ব্যবহার করা হয়েছে নিম্নমানের ইট, বালি ও সিমেন্ট। এছাড়াও ইটের খোয়ার পরিবর্তে পরিত্যক্ত সুরকি ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রত্যক্ষদর্শী এলাকাবাসী।

প্রথমে ভবন নির্মাণের এমন চিত্র স্থানীয় লোকজনের নজরে এলে তারা বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতেই প্রশাসন ও কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা ভবনটি পরিদর্শনে আসেন এবং প্রমাণ পেয়ে এটির নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেন।

এর আগে বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আওতায় দুই কোটি ৪১ লাখ টাকা ব্যয়ে গত বছরের ডিসেম্বর মাসে ভবনটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়। যা আগামী জুন মাসে হস্তান্তরের বিষয়ে চুক্তি হয়। কিন্তু তার আগেই নিম্নমানের কাজের কারণে বন্ধ করে দেয়া হলো ভবনটি নির্মাণের কাজ।

এমন ঘটনার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফরিদুর রহমান ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা হবে বলে জানিয়েছেন।

তবে এ বিষয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ইসিএলের প্রতিনিধি রবিউল ইসলাম দাবী করেন, নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের অজান্তেই এসব অনিয়ম হয়েছে। এছাড়া এ ভবনের লুপ লাইনে সমস্যা হলেও পুরো ভবনে আর কোনো অয়িনম হয়নি বলেও জানিয়েছেন তিনি।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন 

এরশাদ : আগামী নির্বাচনে শুধুমাত্র জাপা আর আ.লীগ থাকবে

বাবার ছোড়া অ্যাসিডে ঝলসে গেল শিশুকন্যা ও মা?

চলতি মাসেই রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ চুক্তি

গ্যাসের পর এবার বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

sheikh mujib 2020