advertisement
আপনি দেখছেন

ব্রিজের কাজ নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় খুলনার কয়রা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হাদিউজ্জামান রাসেল (২৮) নিহত হয়েছেন। গতকাল রোববারের হামলায় গুরুতর আহত রাসেলকে ঢাকায় আনার পথে আজ সোমবার ভোরে তার মৃত্যু হয়।

hadiduzzaman russell

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বাইলহারানিয়া গ্রামে মাদ্রাসার সংলগ্ন বাতিকাটা খালের ওপর নির্মাণাধীন একটি ব্রিজের ঢালাই কাজকে কেন্দ্র করে গতকাল দুই দফা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গতকাল সকালে ঢালাই কাজের স্থান নির্বাচন নিয়ে শ্রমিকদের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েন বাগালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আ. সাত্তার সানা ও হাফিজুর রহমানের তিন ছেলে তুহিন (৪০), বাবু (৩৭) ও মিলন (৩০)।

ওই ঘটনার জেরে গতকাল বিকেলে উভয় পক্ষ আবারো ঝামেলায় জড়ালে সহযোগীদের নিয়ে ঘটনাস্থলে আসেন ছাত্রলীগ নেতা রাসেল। একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে তুহিন ও তার ভাইয়েরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালালে রাসেল ও তার সঙ্গে থাকা ছাত্রলীগ কর্মী ইয়াছিন(১৯), রাজু(২২), আব্দুল্লাহ(২৯), আবুল হাসান(২০) ও সেলিম(৩২) গুরুতর আহত হন।

আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কম্লেক্সে পাঠায়। পরে তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ফুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাসেলকে গাজী মেডিকেলের আইসিইউতে রাখা হয়। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। আহত অন্য ছাত্রলীগ কর্মীরা খুমেকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

এ বিষয়ে জানতে আব্দুস সাত্তার সানার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

কয়রা থানার ওসি রবিউল হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ দায়ের করো হয়নি।