advertisement
আপনি দেখছেন

ক্যাসিনোকাণ্ড ও টেন্ডারবাজির ঘটনায় গ্রেপ্তার বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা জি কে শামীমের দুই মামলায় জামিন বাতিল করেছেন আদালত। এর আগে অস্ত্র মামলায় অত্যন্ত গোপনীয়তায় গত ৬ ফেব্রুয়ারি তাকে ছয় মাসের জামিন দেন হাইকোর্ট। যা ১২ ফেব্রুয়ারি গণমাধ্যমে প্রকাশ পাওয়ার পর আলোচনায় আসে।

 gk shamim casino bail

আজ রোববার তার জামিন বাতিল করে আদেশ দেন বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ।

এদিকে, অত্যন্ত গোপনীয়তায় বহিষ্কৃত যুবলীগের এই নেতার কিভাবে জামিন হয়েছিল তা নিয়ে সর্বমহলে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। রাষ্ট্রপক্ষ দাবি করছে, তথ্য গোপন করা ও নাম বিভ্রান্তের কারণেই জি কে শামীমের জামিন হয়েছিল।

এ ব্যাপারে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল (ডিএজি) মো. ফজলুর রহমান খান আদালতে বলেন, মামলায় জামিন আবেদনকারীর নাম লেখা আছে এস এম গোলাম কিবরিয়া। কিন্তু আদালতের কার্যতালিকায় লেখা এস এম গোলাম। যার কারণে ওই দিন রাষ্ট্রপক্ষ ঠিক বুঝতে পারেনি।

অন্যদিকে, জি কে শামীমের আইনজীবী মেহেদী আদালতকে বলেন, ওই দিন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল (ডিএজি) মো. ফজলুর রহমান খান ওরফে এফ আর খান আদালতেই ছিলেন না।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর নিকেতনে শামীমের কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে র‌্যাব তাকে গ্রেপ্তার করে। ওই সময় বিপুল পরিমাণ মাদক এবং নগদ ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা, ১৬৫ কোটি টাকার স্থায়ী আমানতের (এফডিআর) কাগজপত্র, একটি আগ্নেয়াস্ত্র, দেহরক্ষীদের সাতটি শটগান-গুলি এবং কয়েক বোতল বিদেশি মদ জব্দ করার হয়। গত বছরের ওই অভিযানে জি কে শামীমের সাত দেহরক্ষীকেও গ্রেপ্তার করা হয়।