advertisement
আপনি দেখছেন

দেশের প্রথম এক্সপ্রেসওয়ের (ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা পর্যন্ত) উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এটি উদ্বোধন করেন তিনি। এর পর আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত ৫৫ কিলোমিটারের দীর্ঘ রুটটি যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

dhaka mawa banga road

প্রকল্প কর্মকর্তারা জানান, বিশ্বমানের এ এক্সপ্রেসওয়ে রাজধানীর সঙ্গে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোকে যুক্ত করেছে। এ মহাসড়কটি উন্মুক্ত করার ফলে দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থায় নতুন যুগের সূচনা হলো।

এক্সপ্রেসওয়েটি ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের (এন-৮) যাত্রাবাড়ী ইন্টারসেকশন থেকে (ইকোরিয়া বাবুবাজার লিংক রোডসহ) মাওয়া পর্যন্ত এবং পাঁচ্চর থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত। মূল সড়কে থাকছে চারটি লেন। সড়কের দুই পাশে সাড়ে ৫ মিটার করে (একেক পাশে দুই লেন করে) দুটি সার্ভিস লেন।

এর মাধ্যমে মাত্র ২৭ মিনিটে ঢাকা থেকে মাওয়া পৌঁছানো যাবে। এ ছাড়া ফরিদপুরের ভাঙ্গা যেতে সময় লাগবে মাত্র ৪২ মিনিট। তবে এখনই ভাঙা পর্যন্ত যাওয়া যাবে না। পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর ভাঙা পর্যন্ত যাওয়া যাবে। আপাতত মাওয়া পর্যন্ত সড়কটির সুফল ভোগ করতে পারবেন দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীরা।

dhaka mawa banga road 1

প্রকল্পের বিবরণ থেকে জানা যায়, এ এক্সপ্রেসওয়েতে ৫টি ফ্লাইওভার, ১৯টি আন্ডারপাস, প্রায় ১০০টি সেতু ও কালভার্ট রয়েছে। এটি মাওয়া থেকে যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার দীর্ঘ। এ ছাড়া ২০ কিলোমিটার দীর্ঘ পানছার থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত দুটি এক্সপ্রেসওয়ে খুলনা, বরিশাল ও ঢাকা বিভাগের একাংশকে যুক্ত করেছে।