advertisement
আপনি দেখছেন

দিনাজপুরে বকেয়া বেতনের দাবিতে আন্দোলনরত পাটকল শ্রমিকদের ওপর গুলি চালিয়েছে পুলিশ। এতে এক পান দোকানদার গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন। আহত হয়েছেন আরো অন্তত ১০ জন। গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে জেলার বিরল উপজেলার বিরল ইউনিয়নের রবিপুরে গ্রামে রূপালী জুট মিলের প্রধান ফটকে এই ঘটনা ঘটে।

protest in rupali jute millবকেয়া বেতনের দাবিতে আন্দোলন করছেন দিনাজপুরের বিরল উপজেলার বিরল ইউনিয়নের রবিপুরে গ্রামে রূপালী জুট মিলের শ্রমিকরা

নিহত সুরত আলী (৩৬) বিরল পৌর এলাকার হোসনা গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে। ওই পাটকলের পাশে তার একটি চায়ের দোকান ছিল।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার সন্ধ্যা থেকে ওই মিলের সামনে প্রায় তিন সপ্তাহের বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন শ্রমিকরা। মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচারক এম আব্দুল লতিফ সন্ধ্যা থেকে আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতার চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে তিনি ঘটনাস্থলে আসলে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে কার্যালয়ে ভাঙ্গচুর শুরু করেন। এ সময় ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রথমে কাঁদানে গ্যাস ও পরে গুলি ছোঁড়ে। এ সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান ওই পান দোকানদার।

এ বিষয়ে বিরল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাসিম হাবিব বলেন, বকেয়া বেতন আদায়ের দাবিতে আন্দোলনরত শ্রমিকরা ভাংচুর শুরু করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। এ সময় শ্রমিকরা তাদের ওপরও ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে শুরু করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কাঁদানে গ্যাস ও ফাঁকা গুলি ছোড়ে পুলিশ। এতে দু্ই পক্ষের সংঘর্ষে একজনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন।

বিরল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. আব্দুল মোকাদ্দেস জানান, ওই ব্যক্তিকে মৃত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়েছে। তার থুতনিতে একটি গুলির চিহ্ন ছিল। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।