advertisement
আপনি দেখছেন

রাজধানীর উত্তরখানে বাবা- মায়ের দাম্পত্য কলহের বলি হলো দেড় বছরের এক শিশু। পুলিশ জানিয়েছে, স্বামী- স্ত্রীর পারস্পরিক সন্দেহপূর্ণ সম্পর্কই এই হত্যাকাণ্ডের মূল কারণ। শিশুটির মা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সন্তানকে হত্যা করার বিষয়টি স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

a child is a victim of domestic violence

শিশুটির বাবার নাম সাজ্জাদ হোসেন এবং মায়ের নাম ফাহমিদা মীর। দুই বছরেরও বেশি সময় আগে তাদের বিয়ে হয়। দুজনেরই এটি দ্বিতীয় বিয়ে। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে নানা রকম ঝগড়া লেগে থাকতো এবং তারা পরস্পরকে সন্দেহ করতেন। প্রাথমিক ভাষ্যে পুলিশ জানিয়েছে এসব তথ্য।

সোমবার রাতে উত্তরখানের মাস্টারপাড়া সোসাইটি রোডের একটি বাসার ফ্ল্যাট থেকে নেহাল সাদিক নামের শিশুটির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। তার পেটে ধারালো ছুরির আঘাত দেখা যায়। উদ্ধারর পর শিশুটির লাশ ঢাকা মেডিকেল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ দিকে শিশুটির মায়ের শরীরেও আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়। তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে ঢাকা মেডিকেলে আর শিশুটির বাবা এখন পুলিশের হেফাজতে। উত্তরখান থানার উপপরিদর্শক আসাদুজ্জামান জানান, সন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছিলেন ফাহমিদা। তার শরীরের আঘাত আত্মহত্যা চেষ্টারই। এ সব তথ্য নিজেই বলেছেন ওই নারী।

এই দম্পতির প্রতিবেশী এক নারী জানান, সন্তানের পিতৃত্ব নিয়ে সন্দেহ ছিলো সাজ্জাদের। এ কারণে তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া লেগে থাকতো। এরই এক পর্যায়ে শিশুটিকে হত্যা করা হয় বলে তার ধারণা।

 
আপনি আরো পড়তে পারেন

স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেয়া হবে অনিবন্ধিত সিম

জয়ের স্ট্যাটাসের জবাব দিলেন ইমরান এইচ সরকার

আনিসুল হক: এমন সুন্দর টয়লেট আমার বাড়িতেও নেই

বিএনপিতে আরো নতুন ১৮ মুখ

sheikh mujib 2020