advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ৩৪টি রোহিঙ্গা শিবিরসহ পুরো কক্সবাজার জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। আজ বুধবার বিকেলে এ ঘোষণা দেন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন।

map of coxbazarঅনির্দিষ্টকালের জন্য লকডাউন কক্সবাজার

এ বিষয়ে তিনি বলেন, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত পুরো জেলা লকডাউন থাকবে। এই সময়ের মধ্যে কক্সবাজারের কেউ অন্য জেলায় যাতায়াত করতে পারবেন না। পাশাপাশি অন্য জেলার মানুষও কক্সবাজারে আসতে পারবেন না।

আজ থেকে এ নির্দেশনা বলবৎ থাকবে। সড়ক, নৌ ও আকাশপথ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে। শুধু ওষুধ ও জরুরি পণ্য সরবরাহকারী যানবাহন চলাচল করতে পারবে। কেউ আইন অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একই সঙ্গে উখিয়া ও টেকনাফের ৩৪টি রোহিঙ্গা শিবিরকে লকডাউনের আওতায় আনা হয়েছে উল্লেখ করে জেলা প্রশাসক বলেন, রোহিঙ্গা শিবিরে গণজমায়েত, সভা-সমাবেশ, বিদেশি নাগরিক প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বিভিন্ন দেশি-বিদেশি সংস্থা ও এনজিও কার্যক্রম সীমিত করা হয়েছে।

rohinga campরোহিঙ্গা ক্যাম্প

একটি শিবিরের রোহিঙ্গারা চাইলেই আর অন্য শিবিরে যেতে পারবেন না। যখন-তখন হাটবাজারে যাওয়া যাবে না। সবার ঘরে থাকা নিশ্চিত করতে তাদের জন্য খাদ্য, স্বাস্থ্য ও পানীয় সরবরাহ করা হয়েছে। পাশাপাশি সেনাবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরদারি জোরদার করা হয়েছে।

এর আগে নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল ও নরসিংদী জেলাকেও লকডাউন করে দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া রাজধানী ঢাকা, চট্টগ্রাম ও বৃহত্তর ফরিদপুরের সব প্রবেশ পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।