advertisement
আপনি দেখছেন

ভেজাল ও নিম্ন মানের ঔষধ তৈরির জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী শিগগিরই দেশের বিশটি ঔষধ তৈরিকারী প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে সরকার।

 Adulterated drugs

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওষুধ প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের নেতৃত্বে গঠিত একটি তদন্ত দলের করা প্রতিবেদন পর্যালোচনার পরই ২০টি কোম্পানির লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। যা শিগগিরই কার্যকর হবে বলেও জানা গেছে।

যে সকল কোম্পানির লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করা হয়, সেগুলো হচ্ছে এক্সিম ফার্মাসিউটিক্যাল, এভার্ট ফার্মা, বিকল্প ফার্মাসিউটিক্যাল, নর্থ বেঙ্গল ফার্মাসিউটিক্যাল, রিমো ক্যামিকেল, রিদ ফার্মাসিউটিক্যাল, স্কাইল্যাব ফার্মাসিউটিক্যাল, স্পার্ক ফার্মাসিউটিক্যাল, স্টার ফার্মাসিউটিক্যাল, সুনিপুন ফার্মাসিউটিক্যাল, ডলফিন ফার্মাসিউটিক্যাল, ড্রাগল্যান্ড, গ্লোব ল্যাবরেটরিজ, জলপা ল্যাবরেটরিজ, কাফিনা ফার্মাসিউটিক্যাল, মেডিকো ফার্মাসিউটিক্যাল, ন্যাশনাল ড্রাগ, টুডে ফার্মাসিউটিক্যাল, ট্রপিক্যাল ফার্মাসিউটিক্যাল ও ইউনিভার্সেল ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড।

এছাড়াও উল্লেখিত বিশটি প্রতিষ্ঠান ছাড়াও ১৪টি প্রতিষ্ঠানের সব ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক (নন-পেনিসিলিন, পেনিসিলিন ও সেফালোস্পোরিন গ্রুপ) উৎপাদনের অনুমতি বাতিল, ২২টি কোম্পানির পেনিসিলিন ও সেফালোস্পোরিন গ্রুপের অ্যান্টিবায়েটিক উৎপাদনের অনুমতি স্থগিত করার সুপারিশও করে সংসদীয় কমিটি।

স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মন্জুরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মোহাম্মদ নূরুল হক, ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোস্তাফিজুর রহমান এই বৈঠকে ছিলেন।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন 

রাজধানীর ছয় হাজার বাড়ি চিহ্নিত করে নোটিশ

৫ নবজাতকের মধ্যে মারা গেলেন আরো ২ জন

একসঙ্গে জন্ম নেয়া ৫ নবজাতকের এক জনের মৃত্যু

দেশে চুনাপাথরের বড় খনির সন্ধান

sheikh mujib 2020