advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের ভুয়া রিপোর্টসহ নানা অনিয়ম-দুর্নীতি ধরা পড়ার ৯ দিন পর গ্রেপ্তার করা হল রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান প্রতারক মোহাম্মদ শাহেদকে। সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্ত থেকে তাকে আজ ভোরে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে গ্রেপ্তারের দায়িত্বে থাকা র‌্যাবের দলটি জানায়, বোরকা পরে পাগলের বেশে ঘুরে বেড়াতের শাহেদ, যেন কেউ তাকে চিহ্নিত করতে না পারে। তবে তার শেষ রক্ষা হয়নি।

shahed arrested

গ্রেপ্তারের আগে দেবহাটা উপজেলার শাখরা কোমরপুর বেইলি ব্রিজের নিচে নর্দমার মধ্যে শুয়েছিলেন শাহেদ। স্থানীয়দের অনেকে ফজরের নামাজের ওজু করার সময় তাকে দেখেছেন, কিন্তু পাগল ভেবে কিছু বলেননি। নামাজ শেষ করতেই মুসল্লিরা র‌্যাবের গাড়ির সাইরেন শুনতে পান। র‌্যাব সদস্যদের দেখে দৌঁড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন শাহেদ, কিন্তু ধরা পড়ে যান।

স্থানীয় মাঝিরা জানিয়েছেন, কাল রাতেই শাহেদ এই এলাকায় আসে। ভারতে পৌঁছে দিতে একজন মাঝিকে অনুরোধ করেছিলেন তিনি, কিন্তু সেই মাঝি রাজি হয়নি। মাঝিকে টাকার লোভও দেখানো হয়েছিল। এক পর্যায়ে পাশের ব্রিজের নিচে গিয়ে শুয়ে পড়ে শাহেদ। সেখান থেকেই ভোরে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব সদস্যরা।

regent hospital dhaka

গত ৬ জুলাই বিকেলে উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরের ১৭ নম্বর রোডে অবস্থিত রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। এতে নেতৃত্ব দেন র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম। অভিযানে প্রমাণ মেলে, ৩৫০০ থেকে ৪০০০ টাকা করে নিলেও হাজার হাজার মানুষকে ভুয়া করোনার সার্টিফিকেট ধরিয়ে দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এছাড়া চিকিৎসার অস্বাভাবিক ফি দেখিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে কোটি কোটি টাকা।

sheikh mujib 2020