advertisement
আপনি দেখছেন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা নিয়ে অনেকে অনেক কথা বলেন। কিন্তু এ নিয়ে যত কথাই হোক, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে। সরকারের মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে নিজের সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে আজ বৃহস্পতিবার এ কথা বলেন তিনি।

pm sheikh hasina bangladeshপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নানা সমালোচনা করে। কিন্তু আমার কাছে মনে হয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে। দেশে করোনা শনাক্তের পর তাৎক্ষণিক যেসব কাজ করা দরকার ছিল, সেটা তারা ভালোভাবে করেছে বলেই আমরা করোনা নিয়ন্ত্রণে আনতে পেরেছি। সুতরাং কথা বলার সময় সেটা মাথায় রাখতে হবে। নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেছে প্রত্যেকে। অনেক ডাক্তার, নার্স প্রাণ হারিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে এক শ্রেণীর লোক রয়েছে, যাদের কাজই হলো অন্যের সমালোচনা করা। সামান্য পান থেকে চুন খসলেই তারা নানা কথা বলবে। কিন্তু তারা নিজেরা কোনো কাজ করবে না। এক সময় ডিজিটাল বাংলাদেশ নিয়ে নানা সমালোচনা করেছে তারা। আমি কিন্তু ডিজিটাল বাংলাদেশ করে দিয়েছি। বেসরকারি টেলিভিশন অনেকগুলো দিয়েছি। তাছাড়া আছে বিদ্যুৎ। তারা এখন এয়ার কন্ডিশন চালায়।

health ministry logoস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের লোগো

এ সময় প্রধানমন্ত্রী জনপ্রশাসনের কর্মকর্তাদের মানুষের পাশে থাকার আহ্বান জানান। বলেন, ক্ষমতা ও সুযোগ-সুবিধা সবই জনগণের সম্পদ। তাই দুর্নীতিমুক্ত ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে সবাইকে কাজ করতে হবে।

জানা যায়, এদিন সরকারের ৫১টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের পক্ষে ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর করেন সংশ্লিষ্ট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিবরা। সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত এই কর্মসূচিতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধিত্ব করেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

জনপ্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তাদের প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, কর্মসম্পাদন চুক্তি প্রবর্তন করা হয়েছে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে। কারণ আমরা দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসনিক ব্যবস্থা গড়ে তুলতে চাই। তাই বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির ফলাফল যাতে মানুষ পায়, সেজন্য সবারই দায়িত্ব মানুষের পাশে থাকা এবং তাদের কল্যাণে কাজ করা।

sheikh mujib 2020