advertisement
আপনি দেখছেন

বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে ব্যতিক্রমী এক আইন করলো চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদ। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এখন থেকে কেউ বিয়ে করতে চাইলে অবশ্যই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র নিতে হবে। নয়তো কেউ বিয়ে করতে পারবেন না।

chuadanga jibonnogar meetingবাল্যবিয়ে প্রতিরোধে করণীয় সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা

আজ বৃহস্পতিবার এনজিও সংস্থা ওয়েভ ফাউন্ডেশন ও বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে কাজ করা জীবননগর উপজেলা লোক মোর্চার আয়োজনে 'বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে করণীয় সংক্রান্ত মতবিনিময় সভায়' এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, জীবননগর উপজেলাকে বাল্যবিয়ে মুক্ত করতে হবে। আর তা বাস্তবায়নে সহযোগিতাকারী, কাজী এবং অভিভাবকদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। বিয়ের আগে বয়স প্রমাণের জন্য সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানের কাছ থেকে প্রত্যয়নপত্র নিতে হবে বলেও দাবি জানানো হয়।

marraige new

সভায় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা লোক মোর্চার সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম মুনিম লিংকন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মেহেদী আল মাসুম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দিনেশ চন্দ্র, জীবননগর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুন্সী মাহবুবর রহমান বাবু, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জি এ জাহিদুল ইসলাম, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও সাংবাদিক সালাউদ্দীন কাজল, সেনেরহুদা জান্নাতুল খাদরা দাখিল মাদরাসার সভাপতি আবু জাফর, সাংবাদিক কাজী সামসুর রহমান চঞ্চল, আকিমুল ইসলাম, আতিয়ার রহমান সহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

sheikh mujib 2020