advertisement
আপনি দেখছেন

বেলজিয়ামে উৎপাদিত জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনার টিকা (এক ডোজের) জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ৬টি টিকার অনুমোদন দিলো ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

johnsons ticka governmentজনসনের টিকা ও সরকার

আজ মঙ্গলবার (১৫ জুন) সংস্থাটির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমানের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। টিকাটির বাংলাদেশি এজেন্ট হচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের এমএনসি অ্যান্ড এইচ।

ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল, সিএমসি পার্ট এবং রেগুলেটরি স্ট্যাটাস মূল্যায়ন করে জনসনের টিকার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। টিকাটি সংরক্ষণ করতে হবে ২-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

johnsons tickaজনসনের টিকা, ফাইল ছবি

ঔষধ প্রশাসন জানিয়েছে, ১৮ বছর ও তার চেয়ে বেশি বয়সের ব্যক্তিদের জনসনের টিকা প্রয়োগ করা যাবে। এই বয়সসীমা মেনে টিকা দেয়া হবে সরকারি পরিকল্পনা অনুযায়ী।

এর আগে প্রথমে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত এবং ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদিত টিকা ‘কোভিশিল্ড’ অনুমোদন করে ঢাকা। এরপর পর্যায়ক্রমে রাশিয়ার ‘স্পুতনিক–ভি’, চীনের ‘সিনোফার্ম’ ও ‘সিনোভ্যাক’ এবং যুক্তরাষ্ট্রের ফাইজার–বায়োএনটেকের টিকার অনুমোদন দেয়া হয়।

national drug administration departmentওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর, ফাইল ছবি

প্রসঙ্গত, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি জনসনের টিকাটি জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দেয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। পরে গত ১২ মার্চ টিকাটি জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।