advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাকালের এই সময়ে অন্য আর দশজনের মতো টিকা গ্রহণের জন্য নিবন্ধন করতে গেছেন ঝিনাইদহ পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন। অনেক ঘাঁটাঘাঁটির পর জানানো হলো- তার জাতীয় পরিচয়পত্র সম্পর্কে কোনো তথ্য নেই। অথচ তার হাতে আছে স্মার্ট কার্ড। এরপর স্থানীয় নির্বাচন অফিসে গিয়ে তার নাম পাওয়া গেল বটে, তবে মৃতের তালিকায়!

jhenaideh map

নিজেদের দায় স্বীকার করে ঝিনাইদহের নির্বাচন অফিসার মশিউর রহমান বলেন, এটা একটা অনাকাঙ্ক্ষিত ভুল। অতি দ্রুতই আমরা বিষয়টি সমাধান করার চেষ্টা করছি। ভুক্তভোগীর সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। তার জন্ম সনদও সংগ্রহ করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী আনোয়ার হোসেন বলেন, বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর খুব বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যে দিনাতিপাত করছি। আমি একজন সুস্থ-স্বাভাবিক মানুষ। এই ঘটনার পর থেকে বিভিন্ন জায়গায় হেয় প্রতিপন্ন হচ্ছি। আমার তিনটা কন্যা সন্তান আছে, তারাও বিভিন্ন জায়গায় বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে পড়ছে।

আনোয়ার হোসেন আরও বলেন, ইতোমধ্যে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করেছি। তারা আমার সাথে যোগাযোগ করেছে এবং আশ্বাস দিয়েছে, দ্রুত সময়ের মধ্যে এই সমস্যার সমাধান করা হবে।