advertisement
আপনি পড়ছেন

পরীক্ষা কেন্দ্রে ১৪ শিক্ষার্থীর চুল কেটে দিয়ে আলোচনায় আসা সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের, রবি, সেই শিক্ষিকাকে স্বপদে বহাল রেখেছে কর্তৃপক্ষ। তবে ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন নামের ওই শিক্ষিকাকে ৩টি শিক্ষাবর্ষের শিক্ষাকার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

farhana yasmin rabindra universityফারহানা ইয়াসমিন বাতেন, ফাইল ছবি

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি ফারহানা ইয়াসমিনের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। রবির একাডেমিক ভবনের নোটিশ বোর্ডে রোববার, ২৮ নভেম্বর, বিকেলে রেজিস্ট্রার সোহরাব আলী স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়। তবে অফিস আদেশটি রোববার বিকেলে টানানো হলেও রেজিস্ট্রার তাতে স্বাক্ষর করেছেন গত ২১ নভেম্বর।

এতে বলা হয়েছে, অভিযুক্ত প্রভাষক ফারহানা ইয়াসমিনকে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের ২০১৭-১৮, ২০১৮-১৯ এবং ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষাকার্যক্রম শেষ না হওয়া পর্যন্ত ওই শিক্ষার্থীদের পাঠদান, পরীক্ষা গ্রহণসহ অন্যান্য যাবতীয় একাডেমিক এবং প্রশাসনিক কার্যক্রম থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হলো।

rabindra universityরবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়

বিশ্ববিদ্যালয়টির সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের প্রথম বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষার চলাকালে হলে প্রবেশের সময় গত ২৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে ওই বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী প্রক্টর ফারহানা ইয়াসমিন কাঁচি দিয়ে ১৪ শিক্ষার্থীর চুল কেটে দেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে পরীক্ষা বর্জন করে ফারহানা ইয়াসমিনকে স্থায়ী বরখাস্তের দাবিতে শিক্ষার্থীরা প্রায় ১ মাস ধরে আন্দোলন করেন।