advertisement
আপনি পড়ছেন

মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিনসহ পেন্টাগনের বেশ কয়েকজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা চলতি সপ্তাহে তাদের চীনা সমকক্ষদের কাছে টেলিফোন করে সাড়া পাননি। চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রী ও বেইজিংয়ের অন্যান্য কর্মকর্তা ওয়াশিংটনের প্রতিনিধিদের কল রিসিভ করেননি। মার্কিন সংবাদমাধ্যম পলিটিকো এ খবর জানিয়েছে।

austin milley মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন ও সশস্ত্র বাহিনী প্রধান জেনারেল মার্ক মিলির কল রিসিভ করেননি চীনা কর্মকর্তারা

তাইওয়ানে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির সফরের আগে-পরে লয়েড অস্টিন চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল ওয়েই ফেংহিকে টেলিফোন করেছেন। জেনারেল ফেংহি এসব কল রিসিভ করেননি।

একইভাবে মার্কিন সশস্ত্র বাহিনীর জয়েন্ট চীফস অব স্টাফ চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলি চীনের সামরিক বাহিনী পিএলএর চীফ অব দ্য জয়েন্ট স্টাফ জেনারেল লি ঝৌচেংকে টেলিফোন করেন। পিএলএর প্রধান তার কল রিসিভ করেননি এবং পরবর্তীতে রিটার্ন কল করেননি।

পেন্টাগনের শীর্ষ দুই ব্যক্তিত্বের পাশাপাশি আরও অন্তত এক বা একাধিক কর্মকর্তা চলতি সপ্তাহে তাদের সমপর্যায়ের চীনা কর্মকর্তাকে টেলিফোন করে সাড়া পাননি। এসব ঘটনা সম্পর্কে ওয়াকিবহাল তিনজন কর্মকর্তা পলিটিকোকে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মার্কিন কর্মকর্তারা মনে করছেন চীনের এই নিরবতা ও যোগাযোগ ছিন্ন করার কৌশল অদূরদর্শী ও দায়িত্বহীন। এতে করে দুই পক্ষের মধ্যে এমনিতেই উত্তেজনাকর পরিস্থিতি আরও খারাপ দিকে মোড় নিতে পারে। কারণ বিবদমান পক্ষগুলোর মধ্যে ভুল বুঝাবুঝি ও দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্যই বিভিন্ন সিকিউরড লাইনে যোগাযোগের পথ খোলা রাখা হয়।

পেন্টাগনের এশিয়া পলিসির সাবেক প্রধান র‌্যান্ডি শ্রিভার বলেন, চীনা বাহিনী যখন আগের চেয়ে আগ্রাসীভাবে প্রায়ই মার্কিন বাহিনীর কাছাকাছি আসছে, এ অবস্থায় দুই পক্ষের নিরাপদ কার্য পরিচালনার পথ খোলা রাখতে এসব যোগাযোগ দরকার।

মার্কিন বাহিনীর প্রধান মার্ক মিলি ও পিএলএ প্রধান লি ঝৌচেং গত ৭ জুলাই সবশেষ কথা বলেন। সিকিউরড ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে ওই কলে দুই পক্ষই ঝুঁকি এড়ানোর স্বার্থে যোগাযোগের পথ খোলা রাখার উপর গুরুত্বারোপ করেন। মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিনের সঙ্গে চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওয়েই ফেংহির সবশেষ কথা হয় জুন মাসে। সিঙ্গাপুরে শাংরি-লা সংলাপ চলাকালে দুইজন বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন। সে বৈঠকেও দুই প্রতিরক্ষামন্ত্রী সার্বক্ষণিক যোগাযোগের পথ খোলা রাখার পক্ষে মত দেন বলে জানিয়েছেন পেন্টাগনের ভারপ্রাপ্ত প্রেস সচিব টড ব্রিজলি।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শুক্রবার এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে প্রতিরক্ষা, নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সংলাপ ও সহযোগিতা কার্যক্রম স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে। এর মধ্যে রিজিওনাল কমান্ডার পর্যায়ে দুই সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে সংলাপ বন্ধের কথাও বলা হয়েছে। তবে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বা সশস্ত্র বাহিনী প্রধান পর্যায়ে যোগাযোগ বন্ধের কথা বলা হয়নি। মার্কিন কর্মকর্তারা মনে করছেন, এসব চ্যানেল এখনও খোলা রয়েছে। যদিও টেলিফোন করে তারা চীনা পক্ষের সাড়া পাননি।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর